হিমবাহ ভেঙে উত্তরাখণ্ডে ভেসে গেল বিদ্যুৎ প্রকল্প, নিখোঁজ কমপক্ষে ১৫০

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: রবিবার সকালে উত্তরাখণ্ডের চামোলি জেলায় হিমবাহ ভেঙে অলকনন্দা ও ধৌলিগঙ্গা নদীর জলস্তর প্রবল ভাবে বেড়ে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। কয়েক জনের ভেসে যাওয়ার আশঙ্কাও করা হচ্ছে।

স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে খবর, জোশীমঠের কাছে ওই তুষারধসের জেরে বাঁধ ভাঙা জলের তোড়ে একের পর এক গ্রাম ভেসে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আশেপাশের জনবসতি থেকে গ্রামবাসীদের জরুরি তৎপরতায় সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। রেইনি গ্রামের কাছে বিদ্যুৎ প্রকল্পটি চরম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এলাকায় গিয়েছেন বিপর্যয় ব্যবস্থাপনা দল এবং আইপিটিপির প্রায় শ’খানেক সদস্য। উদ্ধারকাজ চলছে দ্রুত গতিতে।

সংবাদ মাধ্যম সূত্রে খবর, গ্রামগুলির কতটা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে, তা এখনই নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। তবে রেইনি গ্রামের কাছে অবস্থিত সেতুটি ভেসে গিয়েছে। সব থেকে দু:শ্চিন্তার বিষয়, ঋষিগঙ্গা বিদ্যুৎ প্রকল্পের কর্মরত অনেক শ্রমিক-কর্মচারীই জলের তোড়ে ভেসে গিয়েছেন। প্রকল্পের কোনো চিহ্নই নেই ওই এলাকায়। মানচিত্র থেকে কার্যত মুছে গিয়েছে বিদ্যুৎ প্রকল্পটি।

একটি বেসরকারি সূত্র জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত প্রায় দেড়শো জন নিখোঁজ। চামোলি থেকে ঋষিকেশ যাওয়ার রাস্তায় ইতিমধ্যেই জারি হয়েছে লাল সতর্কতা। হু হু করে জল বাড়তে থাকায়, অলকানন্দার জলের গতিপথ পরিবর্তন করা হয়েছে।

বিষ্ণুপ্রয়াগ, জোশীমঠ, কর্ণপ্রয়াগ, রুদ্রপ্রয়াগ, শ্রীনগর, ঋষিকেশ বা হরিদ্বার থেকে অলকনন্দা ও গঙ্গা নদীর তীর বরাবর সতর্কতা জারি করেছে উত্তরাখণ্ড রাজ্য সরকার।

উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী ত্রিবেন্দ্র সিং রাওয়াত টুইট করে জানিয়েছেন, “চামোলি জেলা থেকে একটি বিপর্যয়ের খবর পাওয়া গিয়েছে। জেলা প্রশাসন, পুলিশ বিভাগ এবং বিপর্যয় ব্যবস্থাপনাকে পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কোনো ধরনের গুজবে কান দেবেন না। সরকার প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নিচ্ছে”।

তিনি আরও লেখেন, “আচমকা জল বেড়ে যাওয়ায় অলকনন্দার নিম্নাঞ্চলে বন্যার সম্ভাবনাও রয়েছে। তীরবর্তী অঞ্চলের মানুষকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে”।

এর পরেই চামোলি পুলিশ টুইট করে জানায়, “… তপোবন রেইনি অঞ্চলে হিমবাহে ধসের কারণে ঋষিগঙ্গা বিদ্যুৎ প্রকল্প ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একই কারণে নদীর জলস্তর ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। অলকানন্দা নদীর তীরে বসবাসকারী মানুষকে দ্রুত নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে …”।

দুর্গতদের সাহায্যে হেল্পলাইন নম্বর খোলা হয়েছে। বিপর্যয় মোকাবিলা কেন্দ্রের ১০৭০ অথবা ৯৫৫৭৪৪৪৮৬ নম্বরে ফোন করলে সহযোগিতা পাওয়া যাবে।

আরও পড়তে পারেন: টেনিস কিংবদন্তি আখতার আলি প্রয়াত

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন