বেঙ্গালুরু: ১১৫ জন বিধায়কের সই করা আবেদন জমা দিয়েও শিঁকে ছিড়ল না কংগ্রেস-জেডিএস জোটের। ১০৪ বিধায়কের দল বিজেপিকেই সরকার গড়তে ডাকলেন কর্নাটকের রাজ্যপাল বাজুভাই বালা। বৃহস্পতিবার সকাল ন’টায় মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেবেন বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী বিএস ইয়েদুরিয়াপ্পা। তবে ১৫ দিনের মধ্যে বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে হবে তাঁর দলকে। রাজ্যপালের এই সিদ্ধান্ত নিঃসন্দেহে বড়ো ধাক্কা কং-জেডিএস জোটের কাছে। নিজেদের বিধায়কদের ১৫ দিন ধরে রাখা তাঁদের কাছে এখন বড়ো চ্যালেঞ্জ। কারণ বিজেপির কর্পোরেট এজেন্টরা এখন কর্নাটকে সক্রিয়। সঙ্গা রেড্ডি ভাইদের মতো কুখ্যাত খনি মাফিয়ারা রয়েছে তাঁদের সঙ্গে। সঙ্গে রয়েছেন আর্থিক দুর্নীতির ছাপ লাগা মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ইয়েদুরিয়াপ্পা নিজে।

আরও পড়ুন: ২২ বছর পর দেবেগৌড়ার বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিলেন ভজুভাই

এ দিন সকাল থেকেই জমজমাট ছিল কর্নাটকের নাটক। এক দিকে যখন বিধায়কদের ‘রক্ষা’ করতে তাদের একটি রিসোর্টে সরিয়ে নিয়ে গিয়েছে কংগ্রেস, ঠিক তখনই ভাবী মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী জানিয়ে দেন বিধায়ক ভাঙানোর জন্য একশো কোটি টাকা দেওয়ার বার্তা দিয়েছে বিজেপি।

বুধবার একটি সাংবাদিক সম্মেলনে কুমারস্বামী বলেন, “কর্নাটকের মানুষ বুঝে গিয়েছে ঘোড়া কেনাবেচার জন্য পরিচিত বিজেপিকে দিয়ে রাজ্যের আদৌ ভালো কিছু হবে না। বিজেপি নেতারা আমাদের দলের বিধায়কদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। মন্ত্রিত্বের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একশো কোটি টাকাও দেবে বলছে তারা।”

এর ফল যে ভালো হবে না সে হুমকিও বিজেপিকে দিয়েছেন কুমারস্বামী। বিজেপি তাদের বিধায়ক ভাঙালে তারাও বিজেপির বিধায়ক ভাঙিয়ে নেবে বলে জানিয়েছেন তিনি। তাঁর কথায়, “বিজেপির চেষ্টা ব্যর্থ হবে, কারণ বিজেপির কয়েক জন বিধায়ক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে।”

২০০৬-এ বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়ে বাবা দেবগৌড়াকে দুঃখ দিয়েছিলেন বলে জানান কুমারস্বামী। তাঁর কথায়, “আমি বিজেপির সঙ্গে হাত মিলিয়েছিলাম বলে আমার বাবার রাজনৈতিক কেরিয়ারে একটা কলঙ্ক রয়েছে। সেই কলঙ্ক আমি মুছে দিতে চাই এ বার কংগ্রেসের সঙ্গে সরকার গঠন করে।”

এ দিকে সেই ‘রিসোর্ট রাজনীতি’তেই ভরসা রাখছে কংগ্রেস। জানা গিয়েছে, জয়ী বিধায়কদের বেঙ্গালুরুর কাছে একটি রিসোর্টে স্থানান্তরিত করেছে কংগ্রেস। অন্য দিকে সুপ্রিম কোর্টের লড়াইয়ের প্রস্তুতিও নিচ্ছে তারা।

গোয়া, মণিপুর এবং মেঘালয়ের ঘটনা উল্লেখ করে কংগ্রেস নেতা অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি জানান, রাজ্যপাল যদি কংগ্রেস-জেডিএস জোটকে সরকার গড়ার আহ্বান না জানান তা হলে লড়াই শীর্ষ আদালতে পৌঁছে যাবে।

অভিষেকের আশঙ্কাই শেষ পর্যন্ত সত্যি হল। এখন কংগ্রেস-জেডিএস জোট কী রণকৌশল নেয়, সেটাই দেখার।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন