শিবসেনার আর্জি খারিজ, এনসিপি-কে ডাক রাজ্যপালের, মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত সময়

0

ওয়েবডেস্ক: মহারাষ্ট্রে সরকার গড়ার ছবিটা সোমবার রাতেও স্পষ্ট হল না। কোন দলের নেতৃত্বে কাদের সমর্থনে সে রাজ্যে সরকার গঠিত হবে, তা এখনও বোঝা যাচ্ছে না।

বিজেপি ও শিবসেনা ব্যর্থ হওয়ার পরে, এ বার তৃতীয় দল হিসাবে সরকার গড়ার ডাক পেয়েছে এনসিপি। রাজ্যপালের কাছে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত সময় চেয়েছে এনসিপি। এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার সকালে কংগ্রেস কোর গ্রুপের মিটিং বসছে।

আরও পড়ুন: লণ্ডভণ্ড করলেও বুলবুলের জন্যই পরিষ্কার হল কলকাতার বাতাস

সোমবার এক সময়ে মনে হয়েছিল শিবসেনার নেতৃত্বে এনসিপি ও কংগ্রেসের সমর্থনে মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন হতে চলেছে। সেই মাফিক সন্ধ্যায় মুম্বইয়ে শিবসেনা অফিসে লাড্ডু বিলি হয়ে যায়। এনসিপি ও কংগ্রেস সেনাকে নীতিগত সমর্থনের কথা জানিয়েছিলে।

রাজ্যপাল ভগত সিং কোশিয়ারি সেনাকে সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টা পর্যন্ত সময় দিয়েছিলেন। সেনা নেতৃত্ব সেই সময়ের মধ্যে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করে এনসিপি ও কংগ্রেসের নীতিগত সমর্থনের কথা বলেন। কিন্তু তখনও তাঁদের হাতে সমর্থন সংক্রান্ত কোনো চিঠি এসে না পৌঁছোনোয় তাঁরা রাজ্যপালের কাছে আরও তিন দিন সময় চান। কিন্তু রাজ্যপাল তা দিতে অসম্মত হওয়ায় সরকার গড়ার সুযোগ হারায় শিবসেনা।

এর পরই বিধানসভায় তৃতীয় গরিষ্ঠ দল হিসাবে রাজ্যপালের কাছ থেকে সরকার গড়ার ডাক পায় এনসিপি। রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠকের পরে এনসিপি-র রাজ্য সভাপতি জয়ন্ত পাটিল বলেন, “কাল আমরা আমাদের সহযোগীদের সঙ্গে রাজ্যপালের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করব এবং রাত্রি সাড়ে ৮টার আগে রাজ্যপালের অফিসে জবাব পাঠিয়ে দেব।”

এনসিপি-কে সরকার গড়ার আমন্ত্রণ জানিয়ে রাজ্যপাল সোমবার রাতে এক বিবৃতিতে বলেন, “মহারাষ্ট্র বিধানসভার নির্বাচন হয়েছে ২১ অক্টোবর, আর ফল বেরিয়েছে ২৪ অক্টোবর। ১৬ দিন কেটে যাওয়ার পরেও কোনো একক দল বা জোট সরকার গড়ার জন্য শরিকদের সমর্থনের প্রয়োজনীয় চিঠি দিতে পারল না।”

এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেসের সমর্থন খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। কিন্তু তারা এখনও দোলাচলে। আগামীকাল দলের অন্তর্বর্তী সভাপতি সনিয়া গান্ধীর বাড়িতে কোর গ্রুপের ফের বৈঠক বসছে। সেখানেই তাদের ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা ঠিক করা হবে বলে আশা করা যায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.