arun jaitley corporate tax

শ্রীনগর: জিএসটি পরিষদের প্রথম দিনের বৈঠকে ১,২০৫টি পণ্যের কর নির্ধারিত হল। বেশির ভাগ পণ্যের করই ১৮%  রাখা হয়েছে। সোনা ও বিড়ির কর বৃহস্পতিবার ধার্য করা যায়নি। শুক্রবারও চলবে বৈঠক।

প্রথম দিনের বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেন, “এদিন কোনো পণ্যের কর বাড়ানো হয়নি। বরং বেশ কিছু পণ্যের কর কমানো হয়েছে”।

অর্থমন্ত্রী বলেন, মোট ১২১১টি পণ্যের মধ্যে ৬টি বাদ দিয়ে বাকি সব ক’টির ওপর কত কর বসবে তা এদিন ঠিক হয়ে গেছে। জেটলির দাবি, সব মিলিয়ে করের হার কমে গেলেও, যেহেতু কর আদায়ে দক্ষতা বৃদ্ধি পাবে এবং কর ফাঁকি দেওয়ার সুযোগ কমবে, তাই কর থেকে আয় বৃদ্ধি পাবে সরকারের।

বর্তমানে পরোক্ষ কর ব্যবস্থায় ৪০০টি পণ্য শুল্ক এবং ভ্যাটের আওতার বাইরে রয়েছে। কিন্তু নতুন জিএসটি জমানায় করমুক্ত হবে ৭% পণ্য। অর্থাৎ মোট করমুক্ত পণ্যের পরিমাণ অনেকটাই কমে যাবে। 

শুল্ক সচিব হাসমুখ আধিয়া বলেন, মোট পণ্যের ৮১%-র কর ১৮ শতাংশ বা তার কম রাখা হয়েছে। বাকি ১৯ শতাংশ পণ্যের কর হবে ২৮ শতাংশ। করের যে হার ঠিক হয়েছে, তাতে মোট চার রকম করের সংস্থান থাকছে। ৫, ১২, ১৮ ও ২৮ শতাংশ।

শুক্রবারের বৈঠকে মূলত আলোচনা হবে পরিষেবা কর নিয়ে। অর্থমন্ত্রী বলেন, যদি এই দুদিনের বৈঠকে সব পণ্যের কর ঠিক করা না যায়, তাহলে পরিষেদের আরেকটি বৈঠক হবে।

এখন পর্যন্ত যে সব পণ্যের কর ঠিক হয়েছে, সেগুলির তালিকা:

দুধকে পণ্যে ও পরিষেবা করের বাইরে রাখা হয়েছে।

খাদ্যশস্যে বর্তমানে ৫শতাংশ কর রয়েছে। সেগুলিকে করমুক্ত করা হয়েছে।

অন্যান্য দানাশস্য সস্তা হল।

মাথায় মাখার তেল, সাবান, টুথপেস্টে ১৮ শতাংশ কর ধার্য হয়েছে।

কয়লার ওপর কর ১১.৬৯% থেকে কমিয়ে ৫% করা হয়েছে।

চিনি, চা, কফি, ভোজ্যতেলের ওপর কর ধার্য হয়েছে ৫%।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here