আমদাবাদ: যদি কোনো যৌনকর্মী স্বেচ্ছায় পরিষেবা দেন, তবে তা নেওয়া অপরাধ নয়। কিন্তু কাউকে জোর করে পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করলে, সেই পরিষেবা যিনি গ্রহণ করবেন, তিনিও অপরাধী। জানাল গুজরাত হাইকোর্ট।

গত ৩ জানুয়ারি একটি পতিতাপল্লিতে তল্লাশিতে গিয়ে পাঁচ জনকে গ্রেফতার করে গুজরাত পুলিশ। তার মধ্যেই ছিলেন বিনোদ প্যাটেল নামে এক ব্যক্তি। অন্যদের সঙ্গে বিনোদকেও ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭০ ধারায় পতিতাবৃত্তি (প্রতিরোধ) আইনে অভিযুক্ত করা হয়। এর বিরুদ্ধে হাইকোর্টে আবেদন করেন বিনোদ। বিনোদের বক্তব্য ছিল, তাকে যখন পুলিশ গ্রেফতার করে, তখন তিনি কারও সঙ্গে যৌন সংসর্গে লিপ্ত ছিলেন না, তিনি কোনো চক্রেও জড়িত নন। তিনি তখন কেবল পরিষেবার অপেক্ষায় ছিলেন। তাঁর ওই বক্তব্য আদালত মেনে নিয়েছে।

আদালত জানিয়েছে, নির্ভয়া কাণ্ডের পর এই আইন আরও কঠিন হয়েছে, কিন্তু তাতে স্বেচ্ছায় কেউ পরিষেবা দিলে, সেই পরিষেবা গ্রহণকারীকে অপরাধী বলা যায় না।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here