jawed habib

লখনউ: টুইটারে ক্ষমা চেয়েও পার পেলেন না সেলিব্রেটি হেয়ার স্টাইলিস্ট জাভেদ হাবিব। শেষ পর্যন্ত তাঁর সেলুন ভাঙচুর করা হল। দুর্গাপূজা উপলক্ষে যে বিজ্ঞাপন দিয়ে কলকাতা এবন গ পশ্চিমবঙ্গের সম্ভাব্য পৃষ্ঠপোষকদের আকর্ষণ করার চেষ্টা করা হয়েছে, সেই বিজ্ঞাপনই কাল হল উত্তরপ্রদেশের মোতিনগরে। মোতিনগরে হিন্দু ধর্মের স্বঘোষিত রক্ষকদের অভিযোগ, ওই বিজ্ঞাপনে হিন্দু দেবদেবীদের নিয়ে মস্করা করা হয়েছে। তাঁদের অপমান করা হয়েছে। হিন্দুদের ভাবাবেগে আঘাত দেওয়া হয়েছে।

the controvercial ad
সেই বিতর্কিত বিজ্ঞাপন।

চলতি সপ্তাহেই বিজ্ঞাপনটি প্রকাশ করা হয়। বিজ্ঞাপন রয়েছে, দেবদেবীরা জাভেদ হাবিবের সেলুনে হাজির। তাঁদের কেউ কেউ তাঁদের চুল ঠিক করছেন, মেক আপ করছেন, টাকা গুনছেন ইত্যাদি। আর বিজ্ঞাপনের ট্যাগ লাইন হল ‘গড টু ভিজিট জে এইচ সেলুন’ (ভগবানেরাও জে এইচ সেলুনে আসেন)। টুইটার ও সোশ্যাল মিডিয়ার অন্যান্য মঞ্চে এই বিজ্ঞাপন নিয়ে আলোচনা শুরু হয়। অনেকেই এই বিজ্ঞাপন মেনে নিতে পারেননি। কেউ বলেছেন, মানুষের ভাবাবেগ নিয়ে হাবিবের এ ভাবে খেলা করা উচিত হয়নি, কেউ আবার হিন্দু ধর্মকে অশ্রদ্ধা করার জন্য হাবিবের নিন্দা করেছেন আবার কেউ কেউ আরও খানিকটা এগিয়ে হাবিবের সেলুন বয়কট করার ডাক দিয়েছেন। অনেকেই আবার এই বিজ্ঞাপনে আপত্তিকর কিছু দেখতে পাননি। তাঁরা বলেছেন, দুর্গাপূজার আগে দুর্গা ও অন্যান্য দেবদেবীকে আধুনিক আবহে বসিয়ে অনেক কিছুই করা হয়।

এত আলোচনার ঝড় দেখে হাবিব অবশ্য টুইটারে ক্ষমা চেয়ে নেন। তিনি পরিষ্কার জানিয়ে দেন, কারও ভাবাবেগে আঘাত করার কোনো উদ্দেশ্য তাঁর ছিল না।

কিন্তু তাঁর এই ক্ষমায় ঠেকিয়ে রাখা গেল না হিন্দু জাগরণ মঞ্চকে। শনিবার রাতে মঞ্চের কর্মীরা মোতিনগরে হাবিবের সেলুনে চড়াও হয়। তারা সেলুন ভাঙচুর করে। মালিককে দোকান বন্ধ করে দেওয়ার ভয় দেখায়। সেই সময় বেশ কিছু খরিদ্দার সেলুনের ভিতরে ছিলেন। তাঁরা আটকা পড়ে যান। মঞ্চের আঞ্চলিক সম্পাদক বিমল দ্বিবেদী বলেন, “আমরা হাবিবের সেলুন চালাতে দেব না।” এই ঘটনা নিয়ে সেলুন কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here