নয়াদিল্লি: মকর সংক্রান্তি উপলক্ষে পুণ্যার্থীদের গঙ্গাস্নানের উপর সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি করল হরিদ্বার জেলা প্রশাসন। করোনার তৃতীয় ঢেউ এবং অত্যন্ত সংক্রামক ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে উদ্বেগের পরিপ্রেক্ষিতে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

হরিদ্বারের জেলাশাসক বিনয় শঙ্কর পান্ডের জারি করা একটি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, “প্রবেশ সীমাবদ্ধ করা হয়েছে ‘হর কি পৌড়ি’ এলাকাতেও। ১৪ জানুয়ারি রাত ১০টা থেকে পর দিন সকাল ৬টা পর্যন্ত জেলায় নাইট কারফিউ জারি করা হবে”।

দেশ জুড়ে করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি এবং ওমিক্রন নিয়ে উদ্বেগের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। হরিদ্বার জেলা প্রশাসনের তরফে বলা হয়েছে, কোভিড রুখতে জমায়েতের উপর কঠোর নিষেধাজ্ঞা কার্যকর রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ১৪ জানুয়ারির মকর সংক্রান্তি/স্নান সম্পূর্ণ ভাবে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

উত্তরাখণ্ডের পাশাপাশি ওড়িশাতেও মকর সংক্রান্তির পুণ্যস্নানে নিষেধাজ্ঞা জারি হয়েছে। মকর সংক্রান্তি বা পোঙ্গলে কোনো রকম জমায়েত করা যাবে না বলে জানিয়েছে ওড়িশা সরকার। নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, আয়োজন করা যাবে না মকর মেলার, ভক্ত সমাগম ছাড়াই হবে পুজোপাঠ।

এ দিকে শর্তসাপেক্ষে গঙ্গাসাগর মেলায় সবুজ সংকেত দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্ট। মঙ্গলবার এই মামলার শুনানিতে একগুচ্ছ নতুন নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গোটা গঙ্গাসাগর এলাকাটাই এখন ‘নোটিফায়েড এরিয়া’, অর্থাৎ যেখানে রাজ্যের বিধি কায়েম হতে পারে যে কোনো সময়ই। বলা হয়েছে, কোভিড ভ্যাকসিনের জোড়া ডোজ ছাড়া মেলায় প্রবেশ করা যাবে না। মেলায় যাওয়ার ৭২ ঘণ্টা আগে আরটি-পিসিআর রিপোর্ট নেগেটিভ হতে হবে। এ সব শর্ত পূরণ করলে তবেই কোনো পুণ্যার্থী গঙ্গাসাগর মেলায় অংশ নিতে পারবেন।

আরও পড়তে পারেন: 

বাঙালির ‘পৌষ সংক্রান্তি’ থেকে কাশ্মীরীদের ‘শায়েন-ক্রাত’, জানুন দেশের কোথায় কী নামে পরিচিত মকর সংক্রান্তি

মকর সংক্রান্তির সঙ্গে সম্পদলাভের কী যোগ, জানুন বিস্তারিত

মকর সংক্রান্তি বা উত্তরায়ণ কী, জেনে নিন এই দিনের গুরুত্ব

মকর সংক্রান্তিতে বিশ্বব্যাপী সূর্য নমস্কার অনুষ্ঠানের আয়োজন কেন্দ্রের

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন