গুজরাট: উত্তর গুজরাটের আমুল দিসায় আমুল চিজ প্ল্যান্টের উদ্বোধন করতে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুনেছিলেন, সেখানে বহুদিন পর দেশের প্রধানমন্ত্রী গেলেন। মোদী বললেন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নয়, গুজরাটের সন্তান হিসেবেই বনসকাঁঠায় গিয়েছেন তিনি। তবে ওইটুকুই, তারপর তাঁর ভাষণের পুরো অংশ জুড়েই রইল প্রধানমন্ত্রীর কথা।

বললেন, সরকার চায় সংসদে নোট-বাতিল ও বিমুদ্রাকরণ নিয়ে বিতর্ক হোক। কিন্তু বিরোধীরা সংসদ অচল করে রেখে তা হতে দিচ্ছে না। সংসদে বিরোধীরা তাঁকে বলতে দিচ্ছে না বলেও অভিযোগ করেন প্রধানমন্ত্রী। এতদিন সংসদে প্রধানমন্ত্রী কেন মুখ খুলছেন না, তা নিয়ে অভিযোগ করে আসছিলেন বিরোধীরা। এ দিন সেই অভিযোগের তির কৌশলে তাঁদের দিকেই ঘুরিয়ে দিলেন মোদী।

এ দিন ফের ৫০ দিনেই মানুষের সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে বলে দাবি করেন প্রধানমন্ত্রী। যদিও কয়েকদিন আগেই তাঁর সরকারের অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেছিলেন, নোটের সমস্যার সমাধান হতে তিন থেকে ছয় মাস লাগবে।

৮ নভেম্বর নোট বাতিলের ঘোষণার দিন মোদী বলেছিলেন, কালো টাকা ধ্বংস করার জন্যই এই পদক্ষেপ করছে সরকার। সেই ঘোষণা ১ মাস পর গত ৮ ডিসেম্বর সাংবাদিক বৈঠকে অরুণ জেটলি বলেন, ডিজিটাল লেনদেনকে অগ্রাধিকার দেওয়াই সরকারের লক্ষ্যে। সেই লক্ষ্যে কিছু ছাড়ের ঘোষণাও করেন অর্থমন্ত্রী। এ দিন অবশ্য প্রধানমন্ত্রী ফের কালো টাকা ধ্বংসের লক্ষ্যের কথা তুলে ধরেন। ফের বলেন, গরিবদের জন্যই কাজ করছে তাঁর সরকার।

পাশাপাশি ক্যাশলেস অর্থনীতির পথে হাঁটতে বিরোধীদের সাহায্যও চান মোদী। তরুণ প্রজন্ম যাতে প্রবীণদের ডিজিটাল লেনদেনে সাহায্য ও প্রশিক্ষিত করে তোলে, তার জন্য বিরোধীদের উদ্যোগী হতেও অনুরোধ করেন তিনি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here