খবরঅনলাইন ডেস্ক: একদা তরুণ গগৈয়ের আশাভাজন হিমন্ত বিশ্বশর্মা কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন ছ’বছর আগে। এর পরেই রাতারাতি চরম উত্থান হয়ে গেল তাঁর। সোমবার অসমের নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন তিনি।

এ দিন গুয়াহাটির রাজভবনে হিমন্তকে শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল জগদীপ মুখী। হিমন্ত যখন শপথ নিয়ে নিজের দায়িত্ব বুঝে নিচ্ছেন, তখনই দর্শকের আসনে বসে দেখছেন অসমের সদ্য প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল। এই নির্বাচনে কার্যত সনোয়ালের নেতৃত্বেই অসমে নিজের বৈতরণী পার করেছে বিজেপি।

মুখ্যমন্ত্রীর ব্যাটন যে এ বার হিমন্তের কাছেই যাচ্ছে, সেটা ভোটের আগে থেকেই বুঝিয়ে দিচ্ছিল বিজেপি। তাই মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী ছাড়াই এ বার ভোটে লড়ে তারা। ফল প্রকাশের পর শনিবার দিল্লিতে সনোয়াল এবং হিমন্তকে নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক করে বিজেপি। এর পর রবিবার গুয়াহাটিতে অনুষ্ঠিত বিজেপির পরিষদীয় দলের বৈঠকে নতুন মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে হিমন্তের নাম প্রস্তাব করেন সনোয়াল।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে তরুণ গগৈ-এর কংগ্রেস সরকার থেকে বেরিয়ে আসেন হিমন্ত। এরপরে তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। ক্রমে উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজনৈতিক হয়ে ওঠেন তিনি। তাঁকে কংগ্রেস-বিরোধী দলগুলির বিজেপি নেতৃত্বাধীন জোট নর্থ-ইস্ট ডেমোক্র্যাটিক অ্যালায়েন্সে বা এনইডিএ-এর আহ্বাক করা হয়।

২০১৬ সালের ভোটেও অসমে বিজেপি সরকার প্রতিষ্ঠায় অন্যতম কৃতিত্বের ভাগিদার তিনি। সনোয়াল সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। তবে আগের সরকারেও সনোয়ালের থেকে বেশি প্রচার আলোয় থাকতেন হিমন্তই।

উল্লেখ্য, ১২৬ বিধানসভা আসনের অসমে জোটসঙ্গীদের নিয়ে বিজেপি জিতেছে মোট ৭৫টি আসন। কংগ্রেস, এআইইউডিএফ এবং বামফ্রন্টের জোট জিতেছে ৫০টি আসন। একটি আসন জিতেছেন জেলবন্দি নেতা অখিল গগৈ।

আরও পড়তে পারেন: দু’ দিন বিরতি দিয়ে পেট্রোল-ডিজেলের দাম আবার বাড়ল

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন