শাহজাহানপুর (উত্তরপ্রদেশ): আশঙ্কা একটা ছিলই, সেটাই সম্ভবত সত্যি হতে চলেছে। নেপালের উদ্দেশেই পা বাড়াতে পারেন বাবা গুরমিত রাম রহিমের পালিতা কন্যা হানিপ্রীত ইনসান। সেই কারণে উত্তরপ্রদেশ-নেপাল সীমান্ত জুড়ে কড়া নজরদারি শুরু করেছে পুলিশ। জারি হয়েছে হাই অ্যালার্ট।

গত ১ সেপ্টেম্বর পলাতকা হানিপ্রীতকে খুঁজে বার করার জন্য লুকআউট নোটিশ জারি করে হরিয়ানা পুলিশ। তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই সীমান্তে চরম সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সশস্ত্র সীমা বল এবং উত্তরপ্রদেশ পুলিশের যৌথবাহিনী তল্লাশি চালাচ্ছে। নেপাল সীমান্ত লাগোয়া সবক’টি থানাতেই হানিপ্রীতের ছবি-সহ পোস্টার লাগানো হয়েছে।

লখিমপুরের পুলিশ সুপার এস চানাপ্পা বলেন, “হরিয়ানা পুলিশ জানিয়েছে হানিপ্রীত এখান থেকেই সীমান্ত পেরিয়ে নেপালে যেতে পারেন। সেই তথ্যের ভিত্তিতে সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় তল্লাশি অভিযান আরও জোরদার করেছি। সীমান্ত পেরোনো সব মানুষকেই তল্লাশি করা হচ্ছে।” নেপাল লাগোয়া উত্তরপ্রদেশের চারটে জেলা সিদ্ধার্থনগর, মহারাজগঞ্জ, লখিমপুর খেরি এবং বাহারাইচ জেলায় চরম সতর্কতা জারি রয়েছে। আরও তিনটে জেলার সঙ্গে নেপালের সীমান্ত রয়েছে। সেগুলি হল পিলিভিট, শ্রাবস্তি এবং বলরামপুর। নেপালের সঙ্গে রাজ্যের সীমান্তের দৈর্ঘ্য প্রায় ছ’শো কিলোমিটার।

কিছু দিন আগে হানিপ্রীতের সন্ধানে লখিমপুরে এসেছিলেন হরিয়ানা পুলিশের দুই আধিকারিক। তখনই হানিপ্রীতের সম্ভাব্য গতিবিধির ব্যাপারে বেশ কিছু তথ্য দেন তাঁরা। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের এক আধিকারিকের মতে, সীমান্ত এলাকা থেকে পঞ্জাবের নম্বরধারী একটি বেওয়ারিশ গাড়ি উদ্ধার করেছে পুলিশ। গাড়িটির মালিকের ব্যাপারে এখনও কিছু জানা যায়নি। এর পাশাপাশি বেআইনি ভাবে নেপালে ঢোকার চেষ্টার অভিযোগে দুই মহিলাকেও গ্রেফতার করেছে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ, যদিও তাদের পরিচয় খোলসা করেনি তারা।

প্রসঙ্গত, গুরমিত রাম রহিমের সাজা ঘোষণার পর থেকেই পলাতক রয়েছে তাঁর পালিতা কন্যা হানিপ্রীত।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন