honeypreet insan

পাঁচকুলা (হরিয়ানা): ডেরা সচা সৌদার প্রধান গুরমিত রাম রহিমকে শাস্তি ঘোষণার দিন যে হিংসাত্মক ঘটনা ঘটে সে ব্যাপারে জড়িত থাকার অভিযোগে হানিপ্রীত ইনসানকে ছ’ দিনের জন্য পুলিশ হেফাজতে পাঠাল পাঁচকুলার আদালত। উল্লেখ্য, ২৫ আগস্ট ওই হিংসাত্মক ঘটনায় ৪১ জন প্রাণ হারান এবং বহু মানুষ আহত হন।

ডেরাপ্রধানের পালিতা কন্যা বলে পরিচিত প্রিয়ঙ্কা তানেজা (৩৬) ওরফে হানিপ্রীতকে গতকাল মঙ্গলবার জিরকাপুর-পাটিয়ালা সড়ক থেকে গ্রেফতার করা হয়।

মুখ্য বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট রোহিত ভাটসের আদালতে বুধবার এক ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে শুনানি চলে। শুনানির পরে হানিপ্রীতের কৌঁসুলি এস কে গর্গ নারায়ণ সাংবাদিকদের বলেন, হরিয়ানা পুলিশ ১৪ দিনের জন্য হানিপ্রীতের হেফাজত চেয়েছিল। যুক্তি, পালটা-যুক্তির পর আদালত ছ’ দিনের জন্য পুলিশ হেফাজত মঞ্জুর করে। হানিপ্রীতের সঙ্গিনী সুখদীপ কৌরকেও ছ’ দিনের জন্য পুলিশ হেফাজত দেওয়া হয়েছে।

ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থার মধ্যে বুধবার হানিপ্রীত ও সুখদীপকে চণ্ডীমন্দির থানা থেকে পাঁচকুলার আদালতে পেশ করা হয়। ২৫ আগস্টের হিংসাত্মক ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ৪৩ জন ‘পলাতকের’ যে তালিকা বানিয়েছে, হানিপ্রীত সেই তালিকার প্রথম নাম।

বুধবার আদালতে হানিপ্রীত আগাগোড়া হাতজোড় করে দাঁড়িয়েছিলেন। চোখে ছিল জল। আদালতে তিনি বলেন, তিনি নির্দোষ।

মঙ্গলবার হানিপ্রীত ও সুখদীপকে গ্রেফতার করে চণ্ডীমন্দির থানায় নিয়ে আসা হয়। সেখানে হানিপ্রীতকে এক দফা জেরা করা হয়। তবে জেরায় তিনি কিছুই প্রকাশ করেননি বলে জানান পাঁচকুলার পুলিশ কমিশনার এ এস চাওলা। হানিপ্রীত বুকে ব্যথার কথা বললে হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে তাঁর মেডিক্যাল পরীক্ষা করানো হয়। তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ বলে জানান চিকিৎসকরা।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here