delhi honour killing

নয়াদিল্লি: এ বার অনার কিলিং-এর শিকার হলেন এক ২৩ বছরের যুবক। দিল্লির ব্যস্ত রাস্তায় তাঁকে কুপিয়ে খুন করার অভিযোগ উঠেছে তাঁর প্রেমিকার বাবার বিরুদ্ধে। বাবার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই যুবতী।

বেশ কিছু দিন ধরেই কুড়ি বছরের ওই যুবতীর সঙ্গে ভালোবাসা ছিল পেশায় ফটোগ্রাফার ওই যুবকের। কিছু দিন পরেই দু’জনের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু দু’জনের জাত ভিন্ন হওয়াই যুবতীর পরিবারের সদস্যরা এই সম্পর্ককে মেনে নেননি।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায়, অঙ্কিত সাক্সেনা নামক ওই যুবককে প্রথমে আক্রমণ করেন যুবতীর বাবা এবং কাকা। প্রথমে কিছুক্ষণ অঙ্কিতকে পেটানোর পরে তাঁকে কোপায় ওই মেয়েটির বাবা। এই সময়ে অঙ্কিতের মা তাঁকে বাঁচানোর জন্য এলেও মেয়েটির মা তাঁকে মারধর করেন বলে অভিযোগ। ঘটনার পরে মেয়েটির অভিযোগের ভিত্তিতে তাঁর বাবা মা এবং কাকাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

তবে এমন যে কিছু ঘটতে পারে সেটা আগে থেকেই আন্দাজ করেছিলেন ওই যুবতী। তাঁর সন্দেহ ছিল, তাঁর কাকার সঙ্গীসাথীরা তাঁকে মেরে ফেলতে পারে। থানায় এই অভিযোগ করার পর তাঁকে একটি হোমে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় পুলিশ। তাঁকে পুলিশি নিরাপত্তাও দেওয়া হয়।

পুলিশকে যুবতী জানিয়েছে, “আমি ওর জন্য অপেক্ষা করছিলাম। বাইকে করে বাড়ি ফেরার সময়ে ওর সঙ্গে আমার দেখা করার কথা ছিল। তখন কেউ একজন আমায় বলল যে ওকে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে। আমার বাবাই এই কাণ্ড করেছে।”

অঙ্কিতের মা পুলিশকে জানিয়েছেন, একজন তাঁর কাছে এসে জানায় যে অঙ্কিতকে কয়েক জন মারছে। তখন তিনি ওই জায়গায় গিয়ে দেখেন যে অঙ্কিত লুটিয়ে পড়েছে। তিনি যখন অঙ্কিতকে বাঁচানোর জন্য যান তখন মেয়েটির মা তাঁকে ধাক্কা মারে। অঙ্কিতের মায়ের অভিযোগ, তাঁদের মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে বলে বারবার অঙ্কিতদের অপমান করেছে ওই যুবতীর বাবা-মা।

অভিযুক্তদের মৃত্যুদণ্ডের দাবি করেছে অঙ্কিতের পরিবার।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন