হরিয়ানা: গুরমিত রাম রহিমের শাস্তি ঘোষণা হওয়ার পর থেকে ফোন বন্ধ হয়ে গিয়েছিল বাবার ‘পালিতা কন্যা’ হানিপ্রীত এবং ডেরা সচা সৌদার মুখপাত্র ডাঃ আদিত্য ইনসানের। পুলিশ ফোন ‘ট্যাপ’ করতে পারে এই ভয়ে, তাদের মতো ডেরার অন্য সহযোগীরাও, যাদের হরিয়ানা পুলিশ খুঁজছে, তারাও ফোন বন্ধ করে দিয়েছে।

হরিয়ানা পুলিশ জানতে পেরেছে হানিপ্রীত সহ ডেরার অন্য সহযোগীরা হোয়াটস অ্যাপে পরস্পরের মধ্যে যোগাযোগ চালিয়ে যাচ্ছে। ইন্ডিয়া টুডেতে প্রকাশিত এই খবর অনুযায়ী হরিয়ানার স্বরাষ্ট্রসচিব এসএস প্রসাদ জানিয়েছেন, তাঁরা পরস্পরের মধ্যে যোগাযোগের জন্য হোয়াটস অ্যাপ ব্যবহার করছেন, ফলে তাঁদের অবস্থান জানা যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন: রাম রহিম সংক্রান্ত সব খবর পড়ুন

সাধারণ ভাবে পুলিশ কোনো অপরাধীকে খুঁজে বার করতে ফোন ট্যাপ করে। এ ক্ষেত্রে করা সম্ভব হচ্ছে না, যে হেতু তারা ফোন বন্ধ করে দিয়েছে। পুলিশ মনে করছে, ডেরার সহযোগীরা মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে যথেষ্ট পারদর্শী।

কিছুদিন আগে খবর হয়েছিল কেউ পুলিশের তথ্য হানিপ্রীতের কাছে পৌঁছে দিচ্ছে। স্বরাষ্ট্রসচিব সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন এই অভিযোগ ভিত্তিহীন।  পুলিশের নজরের ডেরার যে সমস্ত অনুগামীরা রয়েছেন তারা বিভিন্ন স্থানে থাকেন। এর ফলে পুলিশের পক্ষে অভিযান চালাতে সমস্যা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জোড়া ধর্ষণ মামলায় বাবা রাম রহিম যখন দোষী সাব্যস্ত হন তখন হানিপ্রীত সহ ডেরা-সহযোগীরা একটি হোয়াটঅ্যাপ গ্রুপ তৈরি করে। সেই গ্রুপেই তারা বিভিন্ন গুরুত্ব তথ্য আদান প্রদান করত। শুধু তা-ই নয়, পুলিশ এ-ও জানতে পেরেছে যে রায় ঘোষণার দিন যে দাঙ্গা হয় তার পরিকল্পনা হয় এই হোয়াটস অ্যাপ গ্রুপেই।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here