Naredra Modi

ওয়েবডেস্ক: জোট সমীকরণ, উন্নয়নমূলক প্রকল্পের বাস্তবায়ন বা প্রচারের উপরই শুধুমাত্র নির্ভর করছে না প্রধানমন্ত্রীপদে নরেন্দ্র মোদীর পুনরাভিষেক! এর সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে প্রকৃতির গতিবিধিও। এমনটাই দাবি করছেন অর্থনেতিক বিশেষজ্ঞরা।

কৃষিপ্রধান দেশ ভারতে সরকার গড়ায় বড়োসড়ো ভূমিকা নিয়ে থাকে কৃষকসমাজ। স্বাভাবিক ভাবে চলতি বছরে যদি ভালো বৃষ্টি হয় তা হলে কৃষকের মনে প্রশান্তির পাশাপাশি মোদীর ভবিষ্যৎও উজ্জ্বল হয়ে উঠতে পারে। অন্য দিকে বৃষ্টিপাত মন্দ হলে কপাল পুড়বে কৃষকের যার আঁচ পড়বে মোদীর ফিরে আসার ক্ষেত্রেও। পরিসংখ্যান বলছে, দেশের ৫০ শতাংশ মানুষের জীবিকা কৃষি-নির্ভর। ফলে এই বিপুল অংশের মানুষের জীবনে যেমন ভালো বৃষ্টিপাতের প্রভাব অপরিসীম তেমনই ভোটযন্ত্রে তাঁদের মতের প্রতিফলনও নির্ভর করছে সেই বৃষ্টিপাতেরই উপর।

দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক নীতি প্রণয়নের জন্য তাকিয়ে থাকে বর্ষার উপর। এই মরশুমের গতিপ্রকৃতির উপর ভিত্তি করেই নতুন নীতি গ্রহণ করে থাকে আরবিআই। ফলে ভালো বৃষ্টির উপর হয়তো আরবিআইয়ের নতুন নীতি নির্ভর করবে। কিন্তু তা যদি পরিপূরক না হয়, তা হলে ২০১৮-১৯ অর্থবর্ষের শেষে আরবিআইয়ের জোরালো পদক্ষেপ সরকারি নীতির বিরুদ্ধে যেতে পারে। ওই সময়ই লোকসভার সম্ভাব্য নির্ঘণ্ট।

শিল্পক্ষেত্রের কাছেও যথেষ্ট ইঙ্গিতবাহী বর্ষা। কৃষিক্ষেত্র-নির্ভর শিল্প হোক বা যন্ত্রানুষঙ্গের বিষয়- সর্বত্রই ভালো বর্ষার অবদান অনস্বীকার্য। কৃষকের (যে হেতু তাঁরা সংখ্যাগরিষ্ঠ) হাতে টাকা না থাকলে পণ্য কিনবে কে?

আরও পড়ুন: নরেন্দ্র মোদীর সভায় দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের প্রাথমিক অনুমান

অনাহূত প্রাকৃতিক দুর্যোগের শিকার হলে ক্ষতিপূরণের বিষয়টিও ফেলনা নয়। উলটে বেশ গুরুত্বপূর্ণ। কারণ প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের শিকার হলে সরকারি ক্ষতিপূরণের টাকা যাবে কোষাগার থেকেই। যা অন্য কোনো সামাজিক প্রকল্পে কাজে লাগিয়ে মোদী সরকার জনপ্রিয়তা আদায় করতে পারে ভোটের মুখে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন