Shweta

খবর অনলাইন ডেস্ক: সচরাচর সোশ্যাল মিডিয়া ছেয়ে যায় হাজারো মজাদার মিমে। তার মধ্যে থেকেই কয়েকটি হয়ে যায় ট্রেন্ডিং। কিন্তু সোশ্যাল মিডিয়ায় পরবর্তী বড়ো ট্রেন্ডিং কী হতে চলেছে, তা অনুমান করা শক্ত। প্রায়শই বেশ কিছু ব্যক্তির নাম-ও ভাইরাল ট্রেন্ডের জন্ম দিয়ে থাকে। এখন যেমন ট্রেন্ডিং হয়েছে একটি মেয়েটির নাম, ‘শ্বেতা’। যে নাম নিয়ে অনলাইনে চলছে মিম-এর বন্যা।

বিনোদের প্রতিদ্বন্দ্বী শ্বেতা

গত ২০২০ সালে এমনই একটি অনলাইনে ট্রেন্ডিং নাম অমর হয়ে রয়েছে- ‘বিনোদ’। এ বার নতুন বছরে বিনোদের নতুন প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে উঠেছে শ্বেতা।

এ মুহূর্তে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জাঁকিয়ে রয়েছে #IPLAuction অথবা #PetrolPriceHike-এর মতো হ্যাশট্যাগগুলি। কিন্তু সে সবের সঙ্গে সমানে দৌড়াচ্ছে শ্বেতা।

হতে পারে রাজনৈতিক এবং পেইড হ্যাশট্যাগের মধ্যে, টুইটার একটি প্রকৃত এবং কৃত্রিম ট্রেন্ডিংয়ে টাটকা বাতাসের শ্বাস নিচ্ছে। সে কারণেই হয়তো বৃহস্পতিবার বিকেলে, ‘শ্বেতা’ টুইটারে ট্রেন্ডিং হয়ে যায়।

কী ভাবে ভাইরাল শ্বেতা

আসলে কী ঘটেছে, তা দেখতে কৌতূহলী নেটিজেনরা হ্যাশট্যাগে ক্লিক করছেন। দেখা যাচ্ছে, মাইক্রোব্লগিং সাইটে একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে, যেখানে রয়েছে শ্বেতা নামে একটি মেয়ের ব্যক্তিগত (গোপন) কথাবার্তা। এই প্রতিবেদনটি লেখার সময়, শ্বেতাকে নিয়ে ১১ হাজারের বেশি টুইট হয়েছে। টুইটারের ট্রেন্ডিংয়ের নিরিখে যা চতুর্থ স্থান দখল করেছে।

বলা হচ্ছে, ওই ভিডিয়োটিতে অনলাইন ক্লাসের কথোপকথন রেকর্ডিং হয়েছিল। যেখানে কোনো এক শ্বেতা নিজের ঘনিষ্ঠ বন্ধুর বিষয়ে কারও সঙ্গে গোপন আলোচনা করছে। কিন্তু সেই কথোপকথনের সময় ভুল করে নিজের মাইকটাকে মিউট করার বদলে স্পিকার অন করে ফেলেছিল সে। যার ফলে সেই সমস্ত গোপন কথাবার্তা পুরো ক্লাসে ছড়িয়ে পড়ে। পরে যা অনলাইনে ভাইরাল হয়ে যায়।

কী বলেছিল শ্বেতা

ওই কথোপকথনে শ্বেতা বলছে যে, কী ভাবে তার বন্ধু নিজের সমস্ত গোপন কথা তার উজাড় করে দিয়েছিল। যেখানে তাকে বলতে শোনা যায়, “যখনই দেখা হয়, তখনই ওই বন্ধুটি নিজের যৌন-আসক্ত বান্ধবীর সঙ্গে মিলিত হয়”। তারা “এটা’ একাধিকবার করেছে”। কী ভাবে তার বন্ধু কখনও কখনও তার বান্ধবীর উপর খুব বেশি অধিকার ফলায়, সে কথাও জানায় মেয়েটি। শ্বেতা বলে, “সে (বন্ধু) মেয়েটিকে পাগলের মতো ভালবাসে। কিন্তু এটাও জানতে পারে, মেয়েটি তাকে ব্যবহার করেছিল। আসলে সে মেয়েটিকে নিয়ে পাগল হয়ে গিয়েছিল… মেয়েটির যৌন আসক্তি ছিল … সেই অনুভূতিতেই আকৃষ্ট হয়েছিল। তাই সে ‘এটা’ করেছিল”।

সে আরও যোগ করেছে, তার বন্ধুটি স্বীকার করেছিল যে মেয়েটির সঙ্গে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হওয়ার প্রতিও তাকে আকৃষ্ট করা হয়েছিল। এবং ঠিক হয়েছিল, তারা যখনই দেখা করবে ‘এটা’ করবে।

শ্বেতা ভেবেছিল, তার স্পিকারটা বন্ধ করা আছে। কিন্তু সহপাঠীরা তাকে সতর্কও করে দিয়েছিল। তাদের বলতে শোনা যায়, “শ্বেতা তোমার সব কথা শোনা যাচ্ছে”। ও দিকে শ্বেতা বলতে থাকে, ওই বন্ধুটি তার ঘনিষ্ট কাউকেও এ ব্যাপারে বলেনি। শুধু তাকেই বলেছিল। এবং অন্য কাউকে বলতে নিষেধও করেছিল।

অডিও ক্লিপটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হওয়ার পর পরই নেটিজেনরা টুইটারকে সবচেয়ে অভিনব এবং হাস্যকর মিমে ভরিয়ে তুলেছেন। দেখে নেওয়া যাক, তারই কিছু ঝলক-

আরও পড়তে পারেন: নিউজিল্যান্ডের কাইল জেমিসনের দর উঠল ১৫ কোটি

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন