মুম্বই: নোট বাতিলের পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে একের পর এক সিদ্ধান্ত বদল করেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। যার ফলে দেশের শীর্ষ ব্যাঙ্কের ‘ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ’ হয়েছে। যা কার্যত ‘মেরামত’ করা সম্ভব নয়। শুধু তাই নয়, অর্থমন্ত্রকের হস্তক্ষেপে ‘অপদস্থ’ হয়েছে শীর্ষ ব্যাঙ্ক। শুক্রবার গভর্নর ঊর্জিত প্যাটেলকে চিঠি দিয়ে এমনটাই জানিয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের কর্মী সংগঠন। অর্থ মন্ত্রক শনিবার বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, এই অভিযোগ ঠিক নয়। কেন্দ্র শীর্ষ ব্যাঙ্কের ‘নিরপেক্ষতা ও স্বশাসন’-এর অধিকারকে সম্মান করে। দেশবাসীর স্বার্থে মাঝে মধ্যে যে আলোচনা হয়, তা সাংবিধানিক পরিধি বা চিরাচরিত প্রথার মধ্যেই থাকে।  

কর্মীদের চিঠিতে বলা হয়েছে, নোট বাতিলের পর যে ভাবে অর্থমন্ত্রক থেকে আধিকারিক এনে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করা হয়েছে তা কর্মীদের কাছে ‘দুঃখজনক’। ১৯৩৫ সাল থেকে আরবিআই কর্মীরা নিজেদের কাজ যথেষ্ট ভালোভাবে সামলেছে। কোনো দিন অর্থমন্ত্রকের হস্তক্ষেপের প্রয়োজন হয়নি। কিন্তু সম্প্রতি কেন্দ্রের নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের পর রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ভূমিকায় এই ‘স্বশাসিত’ সংস্থার ক্ষমতাকেই প্রশ্নের মুখে দাঁড় করিয়ে দিয়েছে।

চিঠিতে কর্মীরা জানিয়েছেন, এই অহেতুক ‘নজরদারির’ ফলে ‘অব্যবস্থা’ আরও বেড়েছে। আরবিআই-এর চারটি কর্মী সংগঠনের প্রধানরা এই চিঠির কথা স্বীকার করে নিয়েছেন।

চিঠিতে ঊর্জিত প্যাটেলকে আবেদন জানিয়ে বলা হয়েছে, অবিলম্বে অর্থমন্ত্রকের হস্তক্ষেপ বন্ধ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে। যাতে দেশের স্বশাসিত শীর্ষ ব্যাঙ্ক ‘স্বাধীনভাবে’ কাজ করতে পারে। ব্যাঙ্কের কর্মীদেরও যাতে আর না ‘অপদস্থ’ হতে হয়।

এপরই শনিবার বিবৃতি দিয়ে অভিযোগ অস্বীকার করল কেন্দ্র। 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here