Connect with us

দেশ

১৫ আগস্টের মধ্যেই বাজারে চলে আসতে পারে ভারতের প্রথম করোনা-প্রতিষেধক ‘কোভ্যাক্সিন’

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভারতের করোনামুক্তি অভিযান কি শুরু হবে স্বাধীনতা দিবসের দিন থেকেই? এমন একটা ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

আগামী ১৫ অগাস্টে ভারতে তৈরি প্রথম করোনা-ভ্যাকসিন অর্থাৎ ‘কোভ্যাক্সিন’ বাজারজাত হতে পারে। ‘ভারত বায়োটেক’ (Bharat Biotech) নামে একটি দেশি সংস্থা ‘কোভাক্সিন’ (Covaxin) নামে এই প্রতিষেধকটির ব্যবহার শুরু করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অফ মেডিকেল রিসার্চের তরফে ভারত বায়োটেককে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে বর্তমানে দেশে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত জরুরি অবস্থার ব্যাপারটি মাথায় রেখে ভ্যাকসিন তৈরির প্রক্রিয়াটি যেন ‘ফার্স্ট ট্র্যাকড্‌’ করা হয়।

আইসিএমআরের মহানির্দেশক ডঃ বলরাম ভার্গব ভারত বায়োটেককে দেওয়া চিঠিতে জানিয়েছেন যে, আগামী ৭ জুলাই থেকে মানবদেহে এই ভ্যাকসিনের ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া নিয়ে পরীক্ষা শুরু করতে হবে।

যদি সব পরীক্ষানিরীক্ষার ফল ঠিকঠাক আসে তা হলে আগামী ১৫ আগস্টের মধ্যেই যাতে ভ্যাকসিনটি ভারতের বাজারে আনা যায়, সেই নির্দেশ দিয়েছেন ভার্গব।

গত ৩০ জুন দেশে তৈরি প্রথম কোভিড -১৯ প্রতিরোধকারী ভ্যাকসিনটির মানবশরীরে পরীক্ষা চালানোর অনুমতি দিয়েছিল। আইসিএমআর আর পুনের ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজির সহযোগিতায় এই ভ্যাকসিন তৈরি করেছে তারা, এমনই জানায় ভারত বায়োটেক। এই ভ্যাকসিনের মানবদেহে পরীক্ষার জন্যে অনুমতিও দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া।

উল্লেখ্য, পুনের এনআইভি-তে (NIV) সার্স-কোভ-২ স্ট্রেনকে আলাদা করা হয় এবং তা পাঠিয়ে দেওয়া হয় ভারত বায়োটেকে। সর্বাধিক জৈব নিরাপত্তায় এই দেশজ টিকা তৈরি হচ্ছে হায়দরাবাদের জেনোম ভ্যালিতে ভারত বায়োটেকের হাইকনটেনমেন্ট ব্যবস্থার মধ্যে।

টিকাটির প্রি-ক্লিনিক্যাল সমীক্ষা এবং নিরাপত্তা ও প্রতিরোধ ক্ষমতা সংক্রান্ত সমীক্ষার ফল কোম্পানি জমা দেওয়ার পরেই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের অধীন সেন্ট্রাল ড্রাগ স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশনের (সিডিএসসিও, CDSCO) ডিসিজিআই মানবশরীরে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা চালানোর অনুমতি দেয়।

কোভ্যাক্সিন ছাড়াও ভারতে তৈরি আরও একটি করোনা-ভ্যাকসিনের পরিক্ষানিরিক্ষায় ছাড়পত্র নিয়েছে কেন্দ্র। দেশের সব চেয়ে বড়ো ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা ‘জাইডাস ক্যাডিলা’ (Zydus Cadila) এই প্রতিষেধকটি তৈরি করেছে। দু’ দফায় চলবে এই পরীক্ষানিরীক্ষা। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক আর ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অব ইন্ডিয়া এই ছাড়পত্র দিয়েছে।

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

দেশ

ফিরল নির্ভয়া-কাণ্ডের স্মৃতি, দিল্লিতে ধর্ষণের পর মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে ১২ বছরের কিশোরী

এখনও কোনো আসার কথা শোনাতে পারেননি চিকিৎসকরা। কে বা কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, সে বিষয়ে কোনো ধারণাই করতে পারছ না ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা।

Child Rape

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নির্ভয়া-কাণ্ডে দোষীদের কয়েক মাস আগেই ফাঁসি হয়েছে। কিন্তু তাতে যে কাজের কাজ কিছুই হয় না, সেটা আরও একবার বোঝা গেল। আবার সেই দিল্লিতেই নৃশংসতার শিকার হল ১২ বছরের এক কিশোরী।

ওই নাবালিকার উপর যৌন অত্যাচার চালিয়ে তাকে খুনের চেষ্টা করল অপরাধীরা। দিল্লির এইমসের (AIIMS) এখন সে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে। এখনও পর্যন্ত অভিযুক্তদের কারও খোঁজ পায়নি পুলিশ। পকসো (POCSO Act) আইনে মামলা দায়ের করে শুরু হয়েছে তদন্ত। ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

রাজধানীর পশ্চিম বিহারের বাসিন্দা এই নাবালিকা। মা,বাবা, দিদির সঙ্গে থাকত সে। তাঁরা সকলেই একটি কাপড়ের কারখানায় কাজ করেন। বুধবার দুপুরের সে বাড়িতে একা থাকার সুযোগে জনা কয়েক দুষ্কৃতী ঢুকে পড়ে। চলে লাগাতার যৌন অত্যাচার।

পরিবারের সদস্যরা বাড়ি ফিরে মেয়েটিকে মেঝেতে শুয়ে কাতরাতে দেখেন। রক্তে ভেসে যাচ্ছিল সে। পরিবারের সদস্যদের বয়ান অনুযায়ী, যৌন অত্যাচারের পর তাকে খুনের চেষ্টা করা হয়েছিল। মাথায়, মুখে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানোর চিহ্ন মিলেছে।

এই অবস্থায় সঙ্গে সঙ্গে নাবালিকাকে উদ্ধার করে প্রথমে নিকটবর্তী সঞ্জয় গান্ধী মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে এইমসে নিয়ে যাওয়া হয় ওই কিশোরীকে।

এখনও কোনো আসার কথা শোনাতে পারেননি চিকিৎসকরা। কে বা কারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, সে বিষয়ে কোনো ধারণাই করতে পারছ না ওই কিশোরীর পরিবারের সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার এই ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন কেজরিওয়াল। টুইটে এ দিন তিনি বলেন, “এই ঘটনা আমাকে পুরোপুরি ভাবে নাড়িয়ে দিয়েছে। দোষীরা স্বাধীন ভাবে চলাফেরা করলে সেটা সহ্য করতে পারব না।”

এর পর এইমসে ওই কিশোরীকে দেখতে যান তিনি। সেখানে বলেন, “ওর শারীরিক অবস্থা এখনও সংকটজনক। অপারেশন হয়েছে। ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টা না গেলে কিছুই বলা যাবে না।”

পশ্চিম বিহার পুলিশের জয়েন্ট কমিশনার জানিয়েছেন, ঘটনার খবর পেয়েই তাঁরা তদন্তে নেমেছেন। ওই এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ জোগাড় করে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দুষ্কৃতীরা এলাকার মধ্যেই গা-ঢাকা দিয়েছে বলে অনুমান তাঁর।

দ্রুত তাদের গ্রেফতার করার আশ্বাস দিয়েছেন ওই পুলিশ আধিকারিক। তবে এই ঘটনা আবার প্রমাণ করে দিয়ে গেল যে দিল্লির আইনশৃঙ্খলা ব্যবস্থা ২০১২ সালে যে রকম ছিল, এখনও সেই রকমই রয়েছে।

Continue Reading

দেশ

দেশের একাধিক রাজ্যে বৃষ্টি-বিপর্যয়, দুর্গত মানুষের হাহাকার

চরমে বিপদে মানুষ।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: অসম এবং বিহার আগে থেকেই বন্যায় কবলিত ছিল। এ বার মহারাষ্ট্র আর কর্নাটকেও পরিস্থিতি খারাপ হতে শুরু করল। গত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড বৃষ্টি হয়েছে এই দুই রাজ্যে। এর পাশাপাশি কেরলেও পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

বিপর্যস্ত মহারাষ্ট্র

গত ৪৮ ঘণ্টায় চরম প্রবল বৃষ্টিতে ভেসেছে মুম্বই। সোমবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত বাণিজ্যনগরীতে বৃষ্টি হয়েছে প্রায় ছ’শো মিলিমিটার। এর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টাতেই বৃষ্টি হয়েছে ৩৩১ মিলিমিটার। গত ৪৬ বছরে মুম্বইয়ে আগস্ট মাসে এটাই দৈনিক সর্বোচ্চ বৃষ্টি।

এই প্রবল বৃষ্টির জেরে বিপর্যয় হয়ে পড়ে মুম্বই। বৃষ্টির সঙ্গী ছিল ১০৭ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া। ফলে একাধিক জায়গায় ভেঙে পড়ে গাছ। শহরের বেশিরভাগ অঞ্চলই জলের তলায় চলে যায়।

বুধবার সন্ধ্যার পর জলের তোড়ে আটকে যায় দুটি লোকাল ট্রেন। ঘটনাটি ঘটে মসজিদ স্টেশনে। দুটি ট্রেনে আটকে পড়েন প্রায় দেড়শো জন। তবে বুধবার রাতের দিকে সবাইকে নিরাপদে উদ্ধার করে আনে এনডিআরএফ।

তবে মুম্বইয়ের থেকেও পরিস্থিতি আরও অনেকটাই খারাপ মহারাষ্ট্রের বাকি অংশে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যের একাধিক জায়গায় গড়ে তিনশো থেকে চারশো মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে সিন্ধুদুর্গ জেলার একটি শহরে বৃষ্টি হয়েছে ৭১০ মিলিমিটার।

রাজ্যে এনডিআরএফের ১৬টি দল মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচটি দল রয়েছে মুম্বইয়ে। কোলাপুরে চারটে, সাংলিতে দুটো এবং সাতারা, ঠানে, পালঘর, রায়গড়, জেলায় একটি করে দল মোতায়েন করা হয়েছে।

কোলাপুর আর সাংলি জেলায় বিপদসীমার ওপর দিয়ে বইছে কৃষ্ণা, পঞ্চগঙ্গা ও বর্না নদী। মুম্বই এবং সংলগ্ন অঞ্চলে বৃষ্টির দাপট কিছুটা কমলেও মধ্য মহারাষ্ট্র আর মরাঠাওয়াড় অঞ্চলে বৃষ্টি এখনও চলতে থাকবে। ফলে সেই সব অঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে।

কর্নাটকে রেকর্ড বৃষ্টি

উত্তর থেকে দক্ষিণ, প্রবল বৃষ্টিতে বিপর্যস্ত কর্নাটক। এর মধ্যে সব থেকে খারাপ অবস্থা উপকূল কর্নাটকের তিন জেলার।

গত ২৪ ঘণ্টায় কুর্গ জেলার ভাগমন্ডলায় বৃষ্টি হয়েছে ৫০০ মিলিমিটার। এ ছাড়া একাধিক জায়গায় গড়ে তিনশো থেকে চারশো মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

প্রবল বৃষ্টির ফলে একাধিক নদীর জল ক্রমশ বাড়ছে। এর ফলে উত্তর কন্নড় জেলায় বিশাল একটি জলাধারের সব গেট খুলে দিয়েছে কর্নাটক সরকার। রাজ্যে কোভিড পরিস্থিতিও যথেষ্ট উদ্বেগজনক। স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী বিএস ইয়েদিউরাপ্পাই আক্রান্ত। তিনি হাসপাতাল থেকেই গোটা পরিস্থিতির ওপরে নজর রাখছেন।

পাহাড়ি জেলা কুর্গ আবার ধসে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এখনও পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর না মিললেও জায়গায় জায়গায় বন্ধ হয়ে গিয়েছে রাস্তা।

আগামী কয়েক দিন আরও প্রবল বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে। ফলে পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলেই আশঙ্কা করা হচ্ছে।

কেরলেও পরিস্থিতি খারাপের পথে

প্রবল বৃষ্টির কবলে পড়েছে কেরলও। গত ২৪ ঘণ্টায় অতিরিক্ত বৃষ্টি হয়েছে কোঝিকোড়, ওয়েনাড় আর ইদুকি জেলায়। মুতুরিপুঝা নদী দু’কুল ভাসানোয় প্লাবিত হয়েছে শৈল শহর মুন্নারও। তবে কেরলের পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস আসন্ন সপ্তাহান্তে উল্লিখিত তিন জেলার পাশাপাশি উত্তর আর মধ্য কেরলের আরও বিস্তীর্ণ অঞ্চলে ভয়াবহ বৃষ্টি হতে পারে। ইদুকি জেলায় প্রবল বৃষ্টি মানেই সমতলের জেলাগুলির আবার বন্যার কবলে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

তবে সব রকম ভাবে প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে কেরল সরকার। ইতিমধ্যে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় মত ৬৩০০টি ত্রাণ শিবির খোলা হয়েছে। নীচু-এলাকাগুলি থেকে আগেভাগেই সাধারণ মানুষকে ত্রাণ শিবিরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া শুরু হয়েছে। এনডিআরএফের চারটে দলকে এখনই তৈরি থাকতে বলা হয়েছে।

বিহার-অসমে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি

গত কয়েকদিন ধরে উল্লেখযোগ্য বৃষ্টি না হওয়ায় বিহার আর অসমে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে ধীরে ধীরে।

বিহারে এখনও পর্যন্ত ১৬টি জেলা বন্যায় কবলিত। দুর্গত ৬৬ লক্ষেরও বেশি। মৃত্যু হয়েছে ১৯ জনের। ১২ হাজারের কিছু বেশ মানুষকে ত্রাণ শিবিরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

বুধবার হেলিকপ্টারে বন্যা কবলিত জেলাগুলি পরিদর্শন করেন মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। দ্বারভাঙা জেলায় একটি ত্রাণ শিবির আর একটি কমিউনিটি রান্নাঘরও পরিদর্শন করেন তিনি।

অন্যদিকে অসমের পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় কোনো উদ্ধারকাজ চালাতে হয়নি প্রশাসনকে। গত ২৪ ঘণ্টায় কারও মৃত্যুও হয়নি। রাজ্যে বর্তমানে বন্যা কবলিত ২ লক্ষের কিছু বেশি মানুষ। মৃতের সংখ্যা ১১০।

তবে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও আগামী দিনে পরিস্থিতি অনবতি হওয়ার আশঙ্কা যে ষোলো আনা তা বলাই বাহুল্য।

Continue Reading

দেশ

হাইকোর্টে সাময়িক স্বস্তি অশোক গহলৌতের

এই মামলার শুনানি সিঙ্গল বেঞ্চের উপর ছেড়ে দেওয়া হল। ১১ আগস্ট এ ব্যাপারে আদলত কোনো নির্দেশ দিতে পারে।

অশোক গহলৌত। ফাইল ছবি

জয়পুর: বিএসপি-র (BSP) ছয় বিধায়কের রাজস্থানের কংগ্রেস সরকারকে সমর্থনের উপর অস্থায়ী ভাবে স্থগিতাদেশের আবেদনটি খারিজ করে দিল রাজস্থান হাইকোর্ট। এই মামলার শুনানি সিঙ্গল বেঞ্চের উপর ছেড়ে দেওয়া হল।

রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গহলৌতের (Ashok Gehlot) উপরে ক্রমাগত চাপ বাড়িয়ে আসছে বিজেপি। বিদ্রোহী কংগ্রেস নেতা সচিন পাইলটের (Sachin Pilot) একের পর এক পদক্ষেপ সামাল দিতে সুপ্রিম কোর্টে পর্যন্ত যেতে হয়েছে রাজস্থান সরকারকে। তার উপর আরও একটি চাপ সৃষ্টি করেছে বিএসপির প্রাক্তন ছয় বিধায়কের কংগ্রেসে যোগদান। বিজেপি আর বিএসপির আবেদনের ভিত্তিতে কংগ্রেসে যোগ দেওয়া বিএসপির প্রাক্তন ছ’জন বিধায়ককে নোটিশ দিয়েছিল রাজস্থান হাইকোর্ট। তবে আপাতত সেই সংকটে কিছুটা হলেও স্বস্তি মিলল অশোক-শিবিরের।

আশা করা হচ্ছে, আগামী ১১ আগস্ট এ ব্যাপারে আদলত কোনো নির্দেশ দিতে পারে। আগামী ১৪ আগস্ট রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশন শুরু হতে পারে। যেখানে আস্থাভোটে যেতে পারেন গহলৌত। তবে তার আগেই ১১ আগস্টের নির্দেশের প্রেক্ষিতে আগামী ১৪ আগস্টের মধ্যে ফের আদালতের দ্বারস্থ হতে পারেন বিধানসভার অধ্যক্ষ সিপি জোশী।

সূত্রের খবর, অশোক গহলৌতের পক্ষে ১০২ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে, যা সংখ্যাগরিষ্ঠতা থেকে মাত্র একটা বেশি। কিন্তু বিএসপির ছ’জনকে বাদ দিলে সেই সংখ্যা ৯৬-এ নেমে আসতে পারে। ২০০ আসনের রাজস্থান বিধানসভায় বিজেপির বিধায়ক সংখ্যা ৭২। বিদ্রোহী কংগ্রেস বিধায়ক এবং তিনজন নির্দল বিধায়ক মিলে সেই সংখ্যা ৯৭-এ পৌঁছাতে বলে অনুমান। কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য ১০১টি আসনের থেকে তা কম!

অন্য দিকে পাইলট শিবিরে তাদের পক্ষে ৩০ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে বলে দাবি করলেও এখনও পর্যন্ত ১৯ জন বিধায়কের বেশি কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি বলেই জানা গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে বিএসপির ছয় বিধায়ককে কংগ্রেসে সংযুক্ত করার অনুমতি দেওয়া অধ্যক্ষের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে আদালত গিয়েছিল বিএসপি এবং বিজেপি। তারা সম্ভাব্য আস্থাভোটে ওই ছয় বিধায়কের অংশগ্রহণের উপর স্থগিতাদেশ চেয়ে হাইকোর্টে যায়।

Continue Reading
Advertisement

রবিবারের খবর অনলাইন

কেনাকাটা

কেনাকাটা17 hours ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা6 days ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা1 week ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা2 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা2 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা2 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

laptop laptop
কেনাকাটা3 weeks ago

ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ২৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ৫টি ল্যাপটপ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কোভিভ ১৯ অতিমারির প্রকোপে বিশ্ব জুড়ে চলছে লকডাউন ও ওয়ার্ক ফ্রম হোম। অনেকেই অফিস থেকে ল্যাপটপ পেয়েছেন।...

কেনাকাটা4 weeks ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

নজরে

Click To Expand