Connect with us

দেশ

ফোন করে আধার নম্বর জানতে চাইলে কী করবেন?

ওয়েবডেস্ক: আধার কর্তৃপক্ষের পরিয় দিয়ে ফোনে করে আপনার কাছে থেকে যদি কোনো ব্যক্তি আপনার আধার নম্বর-সহ ওই সংক্রান্ত বিশদ বিবরণ চেয়ে থাকে, তা হলে সাবধান। ভুল করেও ওই তথ্য ফোনের ও প্রান্তে থাকা ব্যক্তিকে দেবেন না।

কেউ হয়তো  ফোন করে বলতে পারে, ‘আপনি যে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে আধার লিঙ্ক করার আবেদন করেছিলেন আমি সে বিষয়েই কথা বলতে চাই।’ সাবধান, এমন ফোনের কাছে মুখ খুললেই বিপদ।

কারণ  ইউআইডিএআই (ইউনিক আইডেন্টিফিকেশন অথরিটি অব ইন্ডিয়া) জানিয়েছে, তারা এই ধরনের কোনো ফোন করে না। ফলে নাগরিকদের উদ্দেশ্যে উপদেশ দেওয়া হয়েছে, তাদের (ইউআইডিএআইয়ের)  কোনো  কর্মকর্তা আধারের কার্ডের তথ্য জানতে চেয়ে ফোন করেন না।

আধার কর্তৃপক্ষ টুইটার হ্যান্ডেলের মাধ্যমে জানিয়েছে,  ইউআইডিএআই থেকে কোনও অফিসার আপনার কাছে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট বা ফোন নম্বর অথবা বিমা সেবার সঙ্গে আধার নম্বর সংযুক্তির ব্যাপারে যদি জানতে চায়, তা হলে বুঝে নেবেন সে প্রতারক ছাড়া অন্য কেউ নয়। কারণ আধার কর্তৃপক্ষ এই ধরনের কোনো পদক্ষেপ নেয় না।

“আপনার ব্যাঙ্কে অ্যাকাউন্ট নম্বরের সঙ্গে আধার নম্বর লিঙ্ক করানোর প্রতিশ্রুতি দিয়ে কোনো ব্যক্তি যদি ফোন কল করে, তা হলে তার কাছে কোনো তথ্যই প্রকাশ করবেন না। আধার সংযুক্তিকরণ বা তার আপডেট দেখতে এক মাত্র ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইট অথবা ব্যাঙ্কের সঙ্গে যোগাযোগ করুন।” জানিয়েছে ইউআইডিএআই টুইটটি।

দেশ

ট্রেন চালানোর জন্য কেন বেসরকারি বিনিয়োগের মুখাপেক্ষী নরেন্দ্র মোদী?

১৮৫৩ সালে যাত্রা শুরু করে ভারতীয় রেল। সে দিক থেকে এটি এশিয়ার সর্বপ্রথম রেল পরিষেবা।

ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় রেল এই প্রথমবার প্যাসেঞ্জার ট্রেন (passenger train) পরিচালনার জন্য বেসরকারি বিনিয়োগ আহ্বান করেছে। বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম এই রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার উল্লেখ্যনীয় ‘অক্ষমতা’র মেরামতে বেসরকারি বিনিয়োগকেই এখন একমাত্র অবলম্বন বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় সরকার।

বুধবার একটি বিবৃতিতে বলা হয়েছে, রেলমন্ত্রক বেসরকারি সংস্থার হাতে ১০৯টি রুটের ১৫১টি ট্রেন পরিচালনার দায়িত্ব তুলে দেবে। এর জন্য ‘যোগ্যতা যাচাইয়ের অনুরোধ’ বা রিকোয়েস্ট ফর কোয়ালিফিকেশন (RFQ) জমা দেওয়ার কথাও জানানো হয়েছে।

কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তের প্রতিক্রিয়া

বুধবার রেলমন্ত্রকের এই ঘোষণার পরই বিরোধী রাজনৈতিক দল থেকে শুরু করে রেলের বিভিন্ন কর্মী সংগঠন প্রতিবাদ জানাতে শুরু করে।প্রাক্তন রেলমন্ত্রী অধীররঞ্জন চৌধুরী সিদ্ধান্তটিকে পরিকল্পনাহীন আখ্যা দেন। বেসরকারি সংস্থাকে দিয়ে প্যাসেঞ্জার ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত যু্ক্তিপূর্ণ নয় বলেই তিনি মত প্রকাশ করেন।

অন্য দিকে রেলের সহযোগী সংস্থা, যেমন আইআরসিটিসি-র (IRCTC) স্টকের দাম বৃহস্পতিবার চার শতাংশের উপরে উঠে যায়। একই ভাবে রেলকে পরিকাঠামোগত পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা রেল বিকাশ নিগমের ( Rail Vikas Nigam Limited) শেয়ারের দাম বেড়ে যায় আট শতাংশের উপর। রেলওয়ে ব্রিজ নির্মাণকারী সংস্থা ইরকন ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের (Ircon International Limited) শেয়ারের দাম বাড়ে সাড়ে তিন শতাংশের বেশি।

নজর রাখা সংস্থা

১৮৫৩ সালে যাত্রা শুরু করে ভারতীয় রেল। সে দিক থেকে এটি এশিয়ার সর্বপ্রথম রেল পরিষেবা। স্বাভাবিক ভাবেই বিনিয়োগের ব্যাপারে বিদেশি সংস্থাগুলির আগ্রহ থাকাটাই বাঞ্ছনীয়।

রেলের এই পরিকল্পনা গত বছরেই প্রকাশ্যে আসে। গত জানুয়ারি মাসে দ্য ইকনোমিক টাইমসে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, স্থানীয় বৃহৎ উদ্যোগের পাশাপাশি কানাডার (Canada) বম্বারডিয়ার (Bombardier), ফ্রান্সের (France) অলস্টম এসএ (Alstom SA), স্পেনের (Spain) তালগো এসএ (Talgo SA)-এর মতো সংস্থাগুলি এ ব্যাপারে ইতিমধ্যেই আগ্রহ দেখিয়েছে।

তাৎক্ষণিক লক্ষ্য

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi) রাষ্ট্রকে ব্যবসা থেকে দূরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। কয়েক বছর ধরে ছোটো ছোটো বিভ্রান্তির পরে, তাঁর প্রশাসন করোনাভাইরাস মহামারিতে (Coronavirus pandemic) গভীর অর্থনৈতিক সংকটের মুখোমুখি হয়েছে।

অর্থনীতিকে গভীর ঘুম থেকে টেনে তুলতে তাঁর প্রশাসন ২৯০০ কোটি ডলারের রাষ্ট্রায়ত্ত সম্পদের বেসরকারিকরণের উদ্যোগ নিয়েছে। এটাই ভারতে সর্বকালের সর্বোচ্চ বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়া। সম্প্রতি সমীক্ষক সংস্থা ফিচ রেটিং জানিয়েছে, সরকারি ঋণের স্তর জিডিপির ৭৭ শতাংশের মুখোমুখি এবং রাজস্ব ঘাটতির পরিমাণ দ্বিগুণ হতে চলেছে।

প্রকল্পটির বিশদ তথ্য

বেসরকারি বিনিয়োগ থেকে ৩০,০০০ কোটি টাকা আয়ের লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে কেন্দ্র।

বেসরকারি বিনিয়োগের পাশাপাশি যাত্রী পরিষেবাকে আরও উন্নত ও মসৃণ করতে চায় সরকার।

১০৯টি রুটে ১৫১টি যাত্রী ট্রেন বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়া হবে।

নিয়ে আসা হবে নতুন রেক। প্রতিটি রেকে থাকবে ১৬টি করে কামরা।

ট্রেনগুলির গতিবেগ হবে ঘণ্টায় সর্বাধিক ১৬০ কিমি।

বেসরকারি সংস্থাগুলি যাত্রী ট্রেন চালালে রেলকে নির্দিষ্ট পরিবহণ মাশুল এবং ব্যবহারের নিরিখে বিদ্যুৎ মাশুল এবং আয়ের উপর নির্দিষ্ট রাজস্ব মেটাতে হবে।

আরও পড়তে পারেন: যাত্রী ট্রেন চালাতে বেসরকারি সংস্থার কাছ থেকে আবেদন চাইছে রেলমন্ত্রক

তথ্যসূত্র: Bloomberg/ ছবি: প্রতিনিধিত্বমূলক

Continue Reading

দেশ

প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের লাদাখ সফর স্থগিত

চিনের সঙ্গে তিক্ত সীমান্ত উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের সামরিক প্রস্তুতির বিষয়টি পর্যবেক্ষণের জন্য আগামীকাল লাদাখ যাওয়ার কথা ছিল তাঁর।

rajnath singh

নয়াদিল্লি: শুক্রবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী (Defence Minister) রাজনাথ সিংয়ের (Rajnath Singh) লাদাখ সফর আপাতত স্থগিত করা হয়েছে বলে সরকারি সূত্রে খবর। চিনের সঙ্গে তিক্ত সীমান্ত উত্তেজনার পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের সামরিক প্রস্তুতির বিষয়টি পর্যবেক্ষণের জন্য আগামীকাল লাদাখ যাওয়ার কথা ছিল তাঁর।

জানা গিয়েছিল, ভারত-চিন সংঘাত পরবর্তী শুক্রবার লাদাখ যাওয়ার কথা ছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তাঁর সঙ্গে থাকতেন ভারতের সেনাপ্রধান (Army Chief) জেনারেল এমএম নরবনে (MN Naravane)। গত ৫ মে থেকে দুই প্রতিবেশী দেশের সীমান্ত বিবাদ নতুন করে শুরু হওয়ার পর এটাই ছিল তাঁর প্রস্তাবিত প্রথম সফর।

ভারত এবং চিন প্রায় ৩,৪৮৮ কিমি প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (LAC) ভাগ করে নিয়েছে। ১৯৬২ সালের পর থেকে সেই সীমা একটিবারের জন্যও আনুষ্ঠানিক ভাবে পুনর্বিন্যাস করা হয়নি। তবে গত কয়েক মাস ধরেই এলএসি বরাবর চিনের একাধিক পদক্ষেপ দুই দেশের মধ্যে নতুন করে সংঘাতের সৃষ্টি করেছে। বিশেষ করে গত ১৫ জুন চিনা সেনার অতর্কিত আক্রমণে এক কর্নেল-সহ ২০ জন ভারতীয় জওয়ানের নিহত হওয়ার পর পরিস্থিতি ভিন্ন পথে মোড় নিয়েছে।

কী কারণে সফর স্থগিত?

সেনাপ্রধানকে সঙ্গে নিয়েই লাদাখ যাওয়ার কথা ছিল প্রতিরক্ষামন্ত্রী। এ বিষয়ে যাবতীয় প্রস্তুতিও শুরু হয়ে যায় বলে জানা যায়। গত সপ্তাহেই নরবনে লাদাখে গিয়ে ভারতীয় সেনার উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করেন। চিনের যে কোনো ধরনের পদক্ষেপ মোকাবিলায় একাধিক কৌশলও নেওয়া হয়।

তবে প্রতিরক্ষামন্ত্রী সফর আপাতত স্থগিত হলেও, তা ঠিক কী কারণে সেটা জানা যায়নি। শুধু বলা হয়েছে, প্রতিরক্ষামন্ত্রীর লাদাখ সফর পুনর্নির্ধারিত হবে।

অন্য একটি মহলের দাবি, সাম্প্রতিক বৈঠকে গলওয়ান উপত্যকা (Galwan Valley) থেকে হট স্প্রিং পর্যন্ত ১৪, ১৫ ও ১৭ পয়েন্টে ভারত এবং চিন সেনা সরিয়ে নিতে সম্মত হয়েছে। পাশাপাশি চিনা ফৌজ (PLA) ভারতীয় ভূখণ্ড থেকে কয়েক’শো মিটার দূরে সরে যেতেও রাজি হয়েছে।

গত মঙ্গলবার ভারত ও চিনের সিনিয়র কমান্ডাররা একটি বৈঠকে অংশ নেন। ৬ জুনের পর এক মাসের মধ্যে এটি তৃতীয় দফায় বৈঠক। সেখানে দুই দেশের মধ্যে সীমান্ত সংঘাতের অবসান ঘটিয়ে শান্তি ও স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে নিয়ে আসতে দুই পক্ষই রাজি হয় বলে জানা যায়। কিন্তু এ ধরনের সিদ্ধান্ত আগেও নেওয়া হয়। তার পরেও পরিস্থিতির কোনো বদল ঘটেনি।

চিনের বক্তব্য

এর আগে ২২ জুনও দু’পক্ষের বৈঠক হয়েছিল। মঙ্গলবার চুশুলের বৈঠকের পর চিনের সরকারি সংবাদ মাধ্যম গ্লোবাল টাইমস জানায়, “চিন এবং ভারত সীমান্ত অঞ্চলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে সেনা সরিয়ে নেওয়া এবং কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে সম্মত হয়েছে।”

Continue Reading

দেশ

দেশের প্রথম প্লাজমা ব্যাংক চালু হল দিল্লিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনার (Coronavirus) চিকিৎসায় বিশাল ভূমিকা পালন করছে প্লাজমা থেরাপি (Plasma Therapy) গোটা দেশেই আশা জাগাচ্ছে। করোনা সারিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা ব্যক্তির প্লাজমা বা রক্তরস আক্রান্ত রোগীর শরীরে প্রতিস্থাপন করেই এই থেরাপি করা যায়। করোনার কারণে সংকটজনক রোগীদের শরীরে সেই প্লাজমা দেওয়া হলে তাঁরা দ্রুত সেরে ওঠেন।

কিন্তু এর জন্য যে প্লাজমা দরকার তা অনেক সময়েই পাওয়া যায় না। এই ঘাটতি মেটানোর জন্যই প্লাজমা ব্যাঙ্ক চালু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল দিল্লি সরকার। সেই মতো বৃহস্পতিবারই প্লাজমা ব্যাংক চালু হয়ে গেল রাজধানীতে।

এ দিন দুপুরে দিল্লির ইনস্টিটিউট অব লিভার অ্যান্ড বিলিয়ারি সায়েন্সেসে (আইএলবিএস) প্লাজমা ব্যাঙ্ক চালু করার কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল (Arvind Kejriwal)।

এ দিন দুপুরে দিল্লিবাসির উদ্দেশে ভাষণে কেজরিওয়াল বলেন, “এত দিন প্লাজমা জোগাড় করতে লোকজনকে নানা অসুবিধা পোহাতে হচ্ছিল। সেই সমস্যা এ বার মিটবে।”

সেই সঙ্গে তিনি আবেদন করেন, “করোনা সারিয়ে সুস্থ হলেই প্রয়োজনীয় পরীক্ষা করিয়ে ও নির্দেশিকা মেনে প্লাজমা দান করুন। তা হলে আক্রান্ত রোগীদের দ্রুত চিকিৎসা করা সম্ভব হবে।”

প্লাজমা দান করতে হলে দাতাদের কী কী নিয়ম মানতে হবে তার জন্য বিস্তারিত গাইডলাইন তৈরি করেছে সরকার। সেই গাইডলাইনও এ দিন বলেন মুখ্যমন্ত্রী।

***** ১৮ থেকে ৬০ বছর বয়সি যে কেউ প্লাজমা দান করতে পারবেন।

***** করোনা সংক্রমণ সম্পূর্ণ সেরে যাওয়ার পরে ডাক্তারি পরীক্ষায় চূড়ান্ত পর্যায়ের টেস্ট রিপোর্ট নেগেটিভ এলেই প্লাজমা দান করা যাবে।

***** প্লাজমা দানের আগে দাতাকে আরও ১৪ দিন কোয়ারান্টাইনে থাকতে হবে। এই সময়ের মধ্যে যদি সুস্থ হয়ে ওঠা ওই ব্যক্তির মধ্যে নতুন কোনো উপসর্গ দেখা না দেয়, তবেই তাঁকে প্লাজমা দেওয়ার ছাড়পত্র দেওয়া হবে।

***** ডায়াবেটিসের রোগী ও ক্যানসারের রোগীরা প্লাজমা দিতে পারবেন না। উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা থাকলেও প্লাজমা দেওয়া যাবে না।

***** কিডনির রোগ, লিভার ও ফুসফুসের রোগ কিংবা হার্টের রোগ থাকলেও প্লাজমা দেওয়া যাবে না।

Continue Reading
Advertisement
দেশ2 days ago

কোভিড ১৯ আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ১৮,৫২২, সুস্থ ১৩,০৯৯

ক্রিকেট1 day ago

আইসিসির চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন শশাঙ্ক মনোহর, এ বার কি সৌরভ?

ক্রিকেট2 days ago

বর্ণবিদ্বেষের বিরুদ্ধে গর্জে উঠতে আসন্ন টেস্ট সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জার্সিতে থাকছে ‘ব্ল্যাক লাইভ্‌স ম্যাটার’

kiran rao, aamir khan and azaad khan
বিনোদন2 days ago

আমির খানের বেশ কয়েকজন সহযোগী করোনা পজিটিভ

DIY
ঘরদোর2 days ago

সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

ক্রিকেট2 days ago

২০১১ বিশ্বকাপ ফাইনাল: গড়াপেটার অভিযোগে ফৌজদারি তদন্তের নির্দেশ

বিদেশ2 days ago

ভারত ৫৯টি অ্যাপ নিষিদ্ধ করতেই চিনের জোরালো প্রতিক্রিয়া

বিজ্ঞান1 day ago

কোভাক্সিন কী? জেনে নিন বিস্তারিত

নজরে