Illicit relation

ওয়েবডেস্ক: ভারতীয় সেনার মেজর নিখিল হান্দাকে মেরঠে আটক করল পুলিশ। অন্য আর এক মেজরের স্ত্রী শৈলজা দ্বিবেদীকে গলার নলি কেটে খুন করা হয়। সেই ঘটনার সঙ্গে নিখিলের জড়িত থাকার অভিযোগে তাঁকে আটক করা হল রবিবার।

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই দম্পতির সঙ্গে নিখিলের বন্ধুত্ব দীর্ঘদিনের। হাসপাতালেও সম্ভবত নিখিলকে শেষ বার দেখা গিয়েছিল। তিনি দিমাপুরে কর্মরত ছিলেন। এই খুনের ঘটনায় তাঁর কী ভূমিকা রয়েছে, সে ব্যাপারে তাঁকে জি়জ্ঞাসাবাদ করবে পুলিশ। পাশাপাশি জানানো হয়েছে, খুন হওয়ার আগে যে রুপোলি রঙের হোন্ডা সিটি গাড়িটি শৈলজা ব্যবহার করেছিলেন, সেটির বিষয়েও তদন্ত করবে পুলিশ।

দিল্লি মার্ডার

গত শনিবার ৩০ বছর বয়সি শৈলজার মৃতদেহ মেলে দক্ষিণ-পশ্চিম দিল্লির ক্যান্টনমেন্ট সংলগ্ন এলাকায়। পুলিশের কাছ থেকে খবর পেয়ে তাঁর স্বামী  অমিত দ্বিবেদী মৃতদেহটি শনাক্ত করেন। পুলিশের কাছে জমা তথ্য অনুযায়ী, শৈলজা ফিজিওথেরাপি করানোর জন্য বাড়ি থেকে বের হন সকাল ১০টা নাগাদ। এর পর ঘণ্টা কয়েকের মধ্যেই তাঁর খুনের খবর ছড়িয়ে পড়ে।

তবে পুলিশ ধারণা করছে, বিবাহ বহির্ভুত সম্পর্কের জেরেই এই ধরনের ঘটনা ঘটতে পারে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here