নয়াদিল্লি: ভারতে প্রতি বছর ৮ লক্ষ পড়ুয়া ইঞ্জিনিয়ারিং স্নাতক হন। তাঁদের মধ্যে কাজ পান না ৬০ শতাংশই। জানাল অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন। 


এর ফলে গোটা দেশে বছরে ২০ লক্ষ কাজের দিন নষ্ট হয়। এটাই সব নয়। মোট ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ার ১ শতাংশেরও কম গ্রীষ্মকালীন ইন্টার্নশিপের সুযোগ পান। দেশের ৩,২০০টি ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজে যে পাঠক্রম পড়ানো হয়, তার মাত্র ১৫ শতাংশ ন্যাশনাল বোর্ড অফ অ্যাক্রিডিটেশন দ্বারা অনুমোদিত। 


এই তথ্যগুলি থেকে পরিষ্কার, দেশের বিপুল সংখ্যক টেকনিক্যাল কলেজগুলির গুণমানের মধ্যে আকাশপাতাল ফারাক রয়েছে। বেশিরভাগ কলেজ থেকে স্নাতক হওয়া ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়ারা কাজ পাওয়ার যোগ্যই হয়ে উঠতে পারেন না। 

পরিস্থিতি সামাল দিতে দেশের প্রযুক্তি শিক্ষাব্যবস্থাকে ঢেলে সাজার পরিকল্পনা করছে কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। তার মধ্যে একটি হল, ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে দেশের যাবতীয় প্রযুক্তি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য দেশব্যাপী একটিই প্রবেশিকা পরীক্ষা চালু করা। এর সঙ্গে যুক্ত করা হচ্ছে, শিক্ষকদের বার্ষিক প্রশিক্ষণ। যা না হলে, সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন কেড়ে নেওয়া হবে। পাশাপাশি রাখতে হবে, পাঠ্যসূচির বার্ষিক মূল্যায়ন এবং পড়ুয়াদের শিল্প ক্ষেত্রের পরিবেশের সঙ্গে অবহিত করানোর কর্মসূচি।


অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন, কাজে নিযুক্ত ইঞ্জিনিয়ারিং স্নাতকদের সংখ্যা ৪০% থেকে বাড়িয়ে ৬০%-য় নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে।


প্রবেশিকা পরীক্ষা ব্যবস্থার আমূল পরিবর্তনের পাশাপাশি আরও কিছু উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। মন্ত্রকের অধীনস্থ অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন, কাজে নিযুক্ত ইঞ্জিনিয়ারিং স্নাতকদের সংখ্যা ৪০% থেকে বাড়িয়ে ৬০%-য় নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করেছে। অন্তত ৭৫% পড়ুয়া যাতে গ্রীষ্মকালীন ইন্টার্নশিপের মাধ্যমে শিল্প ক্ষেত্রের পরিবেশ সম্পর্কে অবহিত হতে পারেন, সে ব্যাপারেও উদ্যোগী হয়েছে কাউন্সিল। 

২০২২ সালের মধ্যে প্রযুক্তি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলির পাঠক্রমের অন্তত ৫০% ন্যাশনাল বোর্ড অফ অ্যাক্রিডিটেশন দ্বারা অনুমোদিত হতে হবে। যদি প্রতি বছর সন্তোষজনক অগ্রগতি না হয়, তাহলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে। 

চলতি বছরের জুন মাসের মধ্যে এই সংক্রান্ত অ্যাকশন প্ল্যান এবং তার সঙ্গে যুক্ত আর্থিক বিষয়গুলি সম্পর্কে বিস্তারিত রিপোর্ট তৈরির জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে অল ইন্ডিয়া কাউন্সিল  ফর টেকনিক্যাল এডুকেশন। 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন