জোট রক্ষার ‘জ্বালা!’ মাত্রা কুড়ি শতাংশ আসনে মুখোমুখি হচ্ছে দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী

0

চেন্নাই: বছরখানেক আগে পর্যন্ত তামিলনাড়ুর রাজনীতির কথা বলতে গেলে উঠে আসত এআইএডিএমকে বনাম ডিএমকে দ্বৈরথ। সম্মুখ সমরে থাকত এই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই রাজনৈতিক দল। কিন্তু এ বার পরিস্থিতি অনেকটা পালটে গিয়েছে। দু’টো দলই জোটে গিয়েছে। সেই সঙ্গে হয়েছে জোট রক্ষার ‘জ্বালাও।’

তামিলনাড়ু এবং পুদুচেরি মিলিয়ে ৪০টা আসনের মধ্যে মাত্র ৮টা অর্থাৎ কুড়ি শতাংশ আসনে মুখোমুখি হতে চলেছে এই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দল। রবিবার এআইএডিএমকে নিজেদের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করার পরেই ব্যাপারটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে।

তামিলনাড়ুতে এ বার জোটের লড়াই। জয়ললিতা থাকাকালীন এআইএডিএমকের যে দাপট রাজ্যে ছিল, সেটা এখন অনেকটাই নেই বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। অন্য দিকে বিজেপিরও রাজ্যে খুব একটা দাপট নেই। অনেকটা সেই কারণে দুই দল হাত মিলিয়েছে এবং সেই জোটে শামিল হয়েছে আরও একাধিক ছোটো দল। সব মিলিয়ে মাত্র কুড়িটা আসনে প্রার্থী দিয়েছে এআইএডিএমকে। বিজেপির জন্য পাঁচটা এবং বাকি দলগুলির জন্য মোট ১৫টা আসন ছেড়ে দিয়েছে তারা।

আরও পড়ুন: জোটে যাওয়ার প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না: সোমেন মিত্র

অন্য দিকে কুড়িটা আসনে প্রার্থী দিয়েছে ডিএমকেও। ডিএমকের জোটে রয়েছে কংগ্রেস, সিপিএম, সিপিআই-সহ আরও কিছু দল। কংগ্রেসের জন্য ন’টা আসন ছেড়েছে ডিএমকে। সেই সঙ্গে সিপিএমকে কোয়েম্বত্তুর ও মাদুরাই এবং সিপিআইকে তিরুপুর এবং তিরুচিরাপল্লি আসনগুলি ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

কিন্তু তার পর দেখা যাচ্ছে কুড়িটা করে আসনে প্রার্থী দিলেও, রাজ্যে মাত্র আটটা এমন আসন রয়েছে যেখানে মুখোমুখি হবে এআইএডিএমকে এবং ডিএমকে। এর থেকেই প্রমাণ হচ্ছে, এককালে তামিল রাজনীতির দুই মুখেরই এখন শক্তি অনেকটা কমতির দিকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.