Narendra Modi spices up Tripura campaign

আগরতলা: ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনে দ্বিতীয় বার প্রচারে এসেও নরেন্দ্র মোদীর নিশানায় উঠে এল জাতীয় কংগ্রেস। আগরতলার অদূরে শান্তিরবাজারের সভা থেকে মোদী কড়া ভাষায় সমালোচনা করলেন ত্রিপুরার কংগ্রেস নেতৃত্বের।

অতীতে ত্রিপুরার মতো একটি ৬০ আসনের বিধানসভা নির্বাচন নিয়ে এতটা উঠেপড়ে লাগেনি বিজেপি। এক দিকে কেন্দ্রের ক্ষমতায় থাকা বিজেপি সরকার অন্য দিকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভাবমূর্তিকে কাজে লাগিয়ে বিগত আড়াই দশকের বাম শাসনের ‘অবসানে’ জোরালো প্রচারে নেমেছে দল। তবে বামফ্রন্টের ‘অপশাসন’কে সামনে রেখে এই প্রচার প্রক্রিয়া চললেও বারবার বিজেপি নেতৃত্বের বক্তব্যে উঠে আসছে রাজ্যের বিরোধী দল কংগ্রেসের প্রসঙ্গ।

মোদীর বৃহস্পতিবারের জনসভাটি আরও একটি কারণে কংগ্রেসের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। আগামী শুক্রবার রাজ্যে আসছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। স্বাভাবিক ভাবেই তার আগের দিন মোদীর ত্রিপুরা সফর অন্য মাত্রা পেয়ে গেল। প্রধানমন্ত্রী কেন্দ্রের বেশ কিছু প্রকল্পের সার্থক রূপায়ণের প্রতিশ্রুতি দিয়ে বলেন, “সবকা সাথ, সবকা বিকাশ’ স্লোগানের বাস্তবায়ন ত্রিপুরাতেও হবে যদি বিজেপি ক্ষমতায় আসে। ২৫ বছর ধরে বামফ্রন্ট সরকার রাজ্যের মানুষকে ওই সমস্ত কেন্দ্রীয় প্রকল্প থেকে বঞ্চিত করে রেখেছে। আর তাদের যোগ্য সঙ্গত দিয়ে এসেছে কংগ্রেস।”

কংগ্রেসের বক্তব্য, সারা দেশের মতোই ত্রিপুরায় বিজেপির ক্ষমতা দখলের স্বপ্নে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে কংগ্রেস। গত ২০১৩ বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেস এ রাজ্যে ভোট পেয়েছিল ৪৫.৭৫ শতাংশ। অন্য দিকে বিজেপির প্রাপ্ত ভোটের হার ছিল ১.৮৭ শতাংশ। অর্থাৎ রাজ্যে কংগ্রেসের যে ভোট ব্যাঙ্ক রয়েছে, তাতে বড়োসড়ো ভাঙন ধরাতে না পারলে যে বামফ্রন্টকে টক্কর দেওয়া যাবে না, সে কথাই হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন ভোটের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিজেপি নেতৃত্ব।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here