নয়াদিল্লি : প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যতই ‘অচ্ছে দিনের’ স্বপ্ন দেখান, সুখের নিরিখে ক্রমেই নীচে নামছে ভারত। 

বিশ্বের সুখী দেশগুলির তালিকা প্রকাশ করল রাষ্ট্রপুঞ্জের একটি সংস্থা। রাষ্ট্রপুঞ্জ সোমবার ২০ মার্চ আন্তর্জাতিক সুখী দিবস হিসেবে পালন করে আর এই দিনই ১৫৫টি দেশ নিয়ে করা এক সমীক্ষার ফল প্রকাশ হল। এই তালিকা অনুযায়ী অবনতি হয়েছে ভারতের। ২০১৬ সালের এই রিপোর্টে ভারতের স্থান ছিল ১১৮-তে। সেখানে এ বছরে ভারতের স্থান নেমে দাঁড়িয়েছে ১২২-এ। সুখী দেশের তালিকার চিত্রটা ভারতের জন্য খুবই অসুখকর। অসুখকর শ্রীলঙ্কারও। গত তালিকায় শ্রীলঙ্কার নাম ছিল ১১৭-য়, এ বার তার নাম ১২০-তে। বাংলাদেশ তার স্থান এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেনি। তবে ধরে রেখেছে ১১০-এই। আর উপমহাদেশের অন্যতম দেশ পাকিস্তান উঠে এসেছে ৮০-তে। গত বছর পাকিস্তান ছিল ৯২তম স্থানে।   গত বছরের প্রথম স্থানাধিকারী ডেনমার্ককে পেছনে ফেলে তালিকার এক নম্বরে নরওয়ে।

পুরো তালিকাটি দেখতে ক্লিক করুন

এই তালিকা প্রস্তুত করা হয় দেশগুলির মাথাপিছু জিডিপি এবং অর্থনৈতিক উন্নতি, সামাজিক অবস্থা, জীবনকাল, পছন্দের স্বাধীনতা, দুর্নীতি এই সব কিছুর নিরিখেই। এ ছাড়া প্রতিটি দেশের ১ হাজারের বেশি নাগরিককে একটা প্রশ্ন করা হয়। সেই প্রশ্নের যা উত্তর তার মানের গড় বার করা হয়। সেইটিকেও তালিকা তৈরির কাজে ব্যবহার করা হয়। এই প্রশ্নটা হল — মনে করা যাক ০ থেকে ১০ ধাপের একটা মই। মইয়ের এক দম উপরের ধাপে থাকলে বোঝা যায় তিনি খুব সুখী, তেমনই একেবারে নীচের ধাপে থাকা মানে তিনি চরমতম অসুখী। এই মুহূর্তে সেই মইটিতে কে কত নম্বরে আছেন বলে ব্যক্তিগত ভাবে মনে করছেন? এর উত্তরে নরওয়ে পেয়েছে ৭.৫৪, তালিকার সব চেয়ে নীচের দেশ মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র পেয়েছে ২.৬৯। 

আরও পড়ুনবসবাসের মানের নিরিখে ২৩১টির তালিকায় নাম নেই কোনো ভারতীয় শহরের

২০১৭-র সুখী দেশের তালিকার প্রথম দশে রয়েছে —-

নরওয়ে, ডেনমার্ক, আইসল্যান্ড, সুইৎজারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, কানাডা, নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, সুইডেন।

তালিকার শেষ দশে রয়েছে —-

ইয়েমেন, দক্ষিণ সুদান, লাইবেরিয়া, গিনি, টোগো, রোয়ান্ডা, সিরিয়া, তানজানিয়া, বুরুন্দি, মধ্য আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র। 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন