প্রতীকী ছবি। সৌজন্যে স্ক্রল ডট ইন।

ওয়েবডেস্ক: জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জের মানবাধিকার শাখা যে রিপোর্ট করেছে, কূটনৈতিক স্তরে তার সরাসরি প্রতিবাদ জানাল ভারত। রিপোর্টটিকে ‘উদ্দেশ্যপ্রণোদিত এবং প্রতারণাপূর্ণ’ বলে ব্যক্ত করলেন বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার।

এই প্রসঙ্গে সোমবার রবীশ কুমার বলেন, ‘‘জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে আগের রিপোর্টটি উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, প্রতারণাপূর্ণ ছিল। নতুন সংস্করণেও সেই ধারাবাহিকতাই বজায় রয়েছে। রিপোর্টে যা বলা হয়েছে, তা ভারতের সার্বভৌমত্ব বিরোধী। এই রিপোর্টে সীমান্ত সন্ত্রাসের মতো গুরুত্বপূর্ণ সমস্যার কোনো উল্লেখই নেই।’’

আরও পড়ুন জল্পনা উড়িয়ে সমস্যা সমাধানের পথ বাতলে দিলেন সব্যসাচী দত্ত

উল্লেখ্য, গত বছর জুন মাসে কাশ্মীরে সেনার ভূমিকা নিয়ে প্রথম রিপোর্টটি প্রকাশ করে রাষ্ট্রপুঞ্জের মানবাধিকার শাখা। তার সাম্প্রতিক সংস্করণে ভারত এবং পাকিস্তান, দুই দেশেরই তীব্র সমালোচনা করা হয়েছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, ‘‘দুই দেশই কাশ্মীরের উপর নিজেদের কর্তৃত্ব দাবি করে। গত কয়েক দশক ধরে সেখানে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনগুলি। এই রক্তক্ষয়ী লড়াইয়ে হাজার হাজার মানুষের প্রাণ গিয়েছে, যাঁদের মধ্যে অধিকাংশই সাধারণ নাগরিক। কিন্তু এ ব্যাপারে দুই দেশের কেউই কড়া পদক্ষেপ করেনি। ভারতের দখলে থাকা কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর পেশি প্রদর্শনে অসংখ্য নিরীহ মানুষের প্রাণ গিয়েছে। জখমও হয়েছেন বহু। কিন্তু এই জুলুমের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নেয়নি ভারত সরকার।’’

২০১৬-র জুলাই থেকে কাশ্মীরে নিহত সাধারণ যতগুলি হত্যাকাণ্ড ঘটেছে, ছররা বন্দুকের আঘাতে যত জন আহত হয়েছেন, তা নিয়ে তদন্ত কমিটি গড়ার প্রস্তাবও দেওয়া হয় ওই রিপোর্টে। কিন্তু শুরু থেকেই ওই রিপোর্টকে খারিজ করে আসছে ভারত।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন