unemployment youth india

ওয়েবডেস্ক: হতে পারে নেতিবাচক সংবাদ। তাও তো রেকর্ড।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কথার সুর ধরেই বিজেপি নেতৃত্ব বলে থাকেন, কংগ্রেস দশ বছরে যা করেনি, তা করতে বিজেপির পাঁচ বছরও সময় লাগেনি। কংগ্রেসের ইউপিএ সরকার ১০ বছরে চাকরি দিয়েছে ১কোটি ৪৭ লক্ষ বেকারকে। আর বিজেপির এনডিএ সরকার মাত্র পাঁচ বছরে ৬ কোটি ৭ লক্ষ বেকারের হাতে কাজ তুলে দিয়েছে। পরিসংখ্যান যাচাইয়ের জন্য যেহেতু সরকারি দফতরের উপরই নির্ভরশীল হতে হয়, তাই এ বিষয়ে দ্বিমত পোষণ করে খুব একটা লাভ হবে না। তবুও একটি বিশ্বজনীন সংস্থার সমীক্ষা রিপোর্টে চোখ বোলালেই পরিষ্কার হয়ে যাচ্ছে এদেশের কর্মসংস্থানের সাম্প্রতিক চালচিত্রটা আদতে কী?

 বেকারত্বের রেকর্ড দখলে রেখেছে ভারত #unemploymentindiamodi

এ বছর স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে মোদী সময় নিয়েছিলেন মাত্র ৫৭ মিনিট। তবুও এক ঘণ্টারও কম সময়ে তিনি দেশবাসীর উদ্দেশে যে যে প্রতিশ্রুতিগুলি দিয়েছিলেন, তার বহর মোটের উপর মন্দ ছিল না। কিন্তু আশ্চর্যজনক ভাবে তাঁর বক্তব্য থেকে বাদ পড়ে গিয়েছিল এই বেকার সমস্যার বিষয়টি। যা এখন যুব সমাজ তো বটেই সারা দেশের সামনেই জ্বলন্ত একটা সমস্যা।

এ কথা বলছে না দেশের কোনো বিরোধী রাজনৈতিক দল। বলছে, সরকারি পরিসংখ্যান এবং তা সংগ্রহকারী ওই বৃহৎ সমীক্ষক সংস্থা। কী বলছে তারা?

সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, কর্মবিনিয়োগের দিক থেকে এশিয়া মহাদেশের ন’টি প্রথম সারির দেশের মধ্যে ভারতের স্থান রয়েছে সব থেকে নীচে। অর্থাৎ বেকারত্বে প্রথম। নীচের রেখচিত্রটি থেকে সহজেই বুঝে নেওয়া যায় এই ন’টি দেশে বেকারত্বের শতাংশ হার।

তবুও কোনো প্রধানমন্ত্রী যখন বিশাল কোনো জনসভায় হাজার হাজার বেকারকে উদ্দেশ্য করে বলে থাকেন-‘মেরে ভাইয়ো অউর বহনো, হর হাত মে কাম হোগা…।’

তখনও কিন্তু হাত তালি দিতে ভুল করে না ওই হাজার বেকার হাত!

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here