air force

চট্টগ্রাম: ভারতে বসবাসকারী রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ভাগ্যে কী রয়েছে এখনও জানা যায়নি, কিন্তু বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য মানবিকতার হাত বাড়িয়ে দিল ভারত। তাদের জন্য ত্রাণসামগ্রী পাঠাল ভারত।

বৃহস্পতিবার এই ত্রাণসামগ্রী নিয়ে চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে নামে ভারতীয় বায়ুসেনার বিমান। প্রসঙ্গত কিছু দিন আগেই রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে নয়াদিল্লিকে বিস্তারিত রিপোর্ট দেয় ঢাকা। বিদেশ সচিব জয়শংকরের সঙ্গে দেখা করেন দিল্লিতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত সঈদ মুয়াজ্জেম আলি। তার পরেই ত্রাণসামগ্রী পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় দিল্লির তরফ থেকে।

বিদেশ মন্ত্রকের তরফে এই অভিযানের নাম দেওয়া হয়েছে ‘অপারেশন ইনসানিয়াত’। একটি বিবৃতিতে বিদেশ মন্ত্রক জানিয়েছে, “বিপুল সংখ্যক শরণার্থী বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়ায় সে দেশে যে সংকট দেখা দিয়েছে, তার পরিপ্রেক্ষিতেই এই ত্রাণসামগ্রী পাঠিয়ে বাংলাদেশ সরকারের পাশে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত।”

ত্রাণসামগ্রীতে রয়েছে চাল, গম, চিনি, নুন, রান্নার তেল, চা, নুডল্‌স, বিস্কুট এবং মশারি। আপাতত চট্টগ্রামে পৌঁছেছে ৫৩ টন ত্রাণসামগ্রী। মোট সাত হাজার টন ত্রাণ সামগ্রী পাঠানো হবে।

বাংলাদেশের তরফ থেকে এই ত্রাণ সংগ্রহ করার জন্য এ দিন চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী উবাইদুল কাদির। ভারতের এই সাহায্যকে ১৯৭১-এর মুক্তিযুদ্ধের সময়ে পাঠানো সাহায্যের সঙ্গে তুলনা করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ আগস্টের পর মায়ানমারের রাখাইন প্রদেশ থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়েছেন প্রায় ৩ লক্ষ আশি হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম। বাংলাদেশের দাবি এতো সংখ্যক মানুষকে আশ্রয় দেওয়া তাদের পক্ষে খুবই কষ্টকর। আগে থেকেই বাংলাদেশে আশ্রয়ে ছিলেন মায়ানমারের চার লক্ষ মানুষ। নতুন করে সেই সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ার বাংলাদেশে খাদ্যসংকটও তৈরি হতে পারে বলে মত তাদের। সেই জন্যই ভারতের দারস্থ হয়েছিল ঢাকা।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন