ডিসেম্বরের মধ্যেই অ্যাস্ট্রাজেনেকার ১০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন পাচ্ছে ভারত

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বের বৃহত্তম কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন (Covid-19 vaccine) প্রস্তুতকারী সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকার (AstraZeneca) ১০ কোটি ডোজ আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যেই হাতে পেতে পারে ভারত! ওই মাসেই সারা ভারতে টিকাকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে।

অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার সম্ভাব্য কোভিড ভ্যাকসিনটির তৃতীয় তথা শেষ পর্যায়ের পরীক্ষা চলছে। ভারতে এই পরীক্ষা চালাচ্ছে সেরাম ইনস্টিটিউট (SII)। এখনও পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলে দেখা গিয়েছে, নিরাপত্তার দিক থেকে ভ্য়াকসিনের কার্যকারিতার ইতিবাচক প্রমাণ মিলেছে।

পুনে-ভিত্তিক ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (SII)-র কর্ণধার আদর পুনাওয়ালা (Adar Poonawalla) ব্লুমবার্গের কাছে জানান, জরুরিকালীন ব্যবহারের জন্য ডিসেম্বরেই অনুমোদন মিলতে পারে দিল্লির তরফে। যে কারণে, ভ্যাকসিনের উৎপাদনে জোর দেওয়া হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের কাছে দেওয়া সাক্ষাৎকারে পুনাওয়ালা বলেন, প্রাথমিক ভাবে তৈরি হওয়ার ভ্যাকসিনের ডোজ ভারতের জন্যই ধার্য করা হবে। আগামী বছর পূর্ণাঙ্গ অনুমোদন মিলে যাওয়ার পর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সঙ্গে চুক্তি মতো ৫০:৫০ ভিত্তিতে ভারত এবং দক্ষিণ এশিয়ার অন্য়ান্য দেশে এই ভ্যাকসিন সরবরাহ করা হবে।

পুনাওয়ালা বলেন, “আমরা কিছুটা উদ্বেগের মধ্যে ছিলাম। কারণ এটা একটা বড়োসড়ো ঝুঁকির শামিল ছিল”। তবে “অ্যাস্ট্রাজেনেকা এবং নোভাভ্যাক্সের প্রয়োগে বেশ আশাপ্রদ ফলাফল দেখা যাচ্ছে”।

একই সঙ্গে অ্যাস্ট্রাজেনেকার সিইও পাস্কেল সরিওট জানিয়েছেন, আগামী ডিসেম্বর থেকেই বৃহৎ আকারের টিকাকরণ কর্মসূচি চালু হওয়ার ব্যাপারে তিনি আশাবাদী। ব্রিটেন এক বার জরুরিকালীন ব্যবহারের জন্য অনুমতি দিলেই তা শুরু হয়ে যাবে। সেরামের তরফে ভারতীয় নিয়ন্ত্রক সংস্থার কাছে একই ধরনের আবেদন পেশ করা হবে।

সরকারের সঙ্গে এ ব্যাপারে কথা বলার পর প্রয়োজনীয় অনুমোদন পেতে কালবিলম্ব হবে না বলেই মনে করছেন পুনাওয়ালা। দুর্বল অংশ এবং কোভিডের বিরুদ্ধে সামনের সারির কর্মীদের জন্য জরুরিকালীন ব্যবহারে সরকারি ভাবে সবুজ সংকেত আদায়ে খুব বেশি বেগ পেতে হবে না।

প্রসঙ্গত, আস্ট্রাজেনেকা-অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্য়ালয়ের (AstraZeneca-Oxford University) সঙ্গে চুক্তি করেছে সেরাম ইনস্টিটিউট (Serum Institute)। প্রত্যেককে সেরামের তৈরি ভ্যাকসিনের দু’টি ডোজ নিতে হবে বলে আগেই জানান আদর। দু’টি ডোজের মধ্যে ব্যবধান ২৮ দিনের।

আরও পড়তে পারেন: কোভিড টিকার সরবরাহে কোমর বেঁধে নামছে লজিস্টিক সংস্থাগুলি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন