bullett trains

মুম্বই: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর স্বপ্নের বুলেট ট্রেন প্রকল্পের গুরুত্বপূর্ণ সময়সীমা ফসকাতে চলেছে কেন্দ্র। এর ফলে গোটা প্রকল্পের কাজই পিছিয়ে যেতে পারে।

এই প্রকল্পের জন্য সমস্ত জমি অধিগ্রহণের সময়সীমা এই বছরের ডিসেম্বর ধার্য করা হয়েছিল। কিন্তু মহারাষ্ট্রের বেশ কিছু জায়গায় জমি অধিগ্রহণ একটা বড়ো সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। জমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করেছেন মহারাষ্ট্রের পালঘর অঞ্চলের ফল চাষিরা।

যে যে জায়গায় এই বিক্ষোভ শুরু হয়েছে সেখান দিয়ে প্রায় ১০৮ কিমি রেললাইন তৈরি হবে, প্রস্তাব এমনই। সূত্রের খবর, স্থানীয় রাজনীতিক, বিশেষ করে শিবসেনার মদতেই এই বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন চাষিরা।

জমি অধিগ্রহণের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো এক চাষি দশরথ পুরব বলেন, “তিন দশক ধরে দিন রাত পরিশ্রম করে এই জমি আমি গড়ে তুলেছি। এখন তারা আমার সেই জমি দিয়ে দিতে বলছে। এটা হতে পারে না।” কোনো ভাবেই তিনি সরকারের চাপের কাছে নতিস্বীকার করবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।

মোদীর স্বপ্নের এই প্রকল্পের জন্য জাপানের সঙ্গে চুক্তি রয়েছে ভারতের। সময়সীমা ফসকে গেলে কেন্দ্রের মুখ পুড়বে। যে করেই হোক জমি অধিগ্রহণ করা হবেই বলে জাপানের প্রশাসনকে আশ্বস্ত করেছে কেন্দ্র।

বিজেপি তথা কেন্দ্রের রক্তচাপ বাড়তে পারে এমন মন্তব্যও এসেছে শিবসেনার তরফ থেকে। দলের মুখপাত্র নীলম গোরহে বলেন, “আগামী দিনে এই প্রকল্পের বিরুদ্ধে আমাদের বিক্ষোভ আরও বাড়বে।”

প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছে ছিল ২০২২-এ ভারতের ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসের সময়ে বুলেট ট্রেনের সূচনা করা হবে। কিন্তু এখানকার চাষিরা যে ভাবে নিজেদের দাবিতে অনড় তাতে সেই ইচ্ছে কবে পূরণ হয়, বা আদৌ হয় কি না সেটাই দেখার।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন