নয়াদিল্লি: সামনের জুলাইয়ে ইজরায়েল সফরে যাবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই সফরের আগে ইজরায়েলের সঙ্গে ক্ষেপণাস্ত্র বিষয়ক দু’টি চুক্তি সই করার পথে ভারত। এমনই জানা গিয়েছে।

জানা গিয়েছে, ইজরায়েলের সঙ্গে ট্যাঙ্করোধী ক্ষেপণাস্ত্র এবং নৌ-অস্ত্র বিষয়ক চুক্তি হবে ভারতের। আগামী দু’মাসের মধ্যে এই দু’টি চুক্তি হয়ে যাবে বলে আশা প্রকাশ করা হয়েছে। প্রায় দেড়শো কোটি ডলারের বিনিময়ে এই চুক্তি হতে চলেছে। এর ফলে আগামী দু’ বছরে আট হাজারটি ক্ষেপণাস্ত্র ভারতের হাতে আসবে।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে দু’শো কোটি ডলারের বিনিময়ে মাঝারি পাল্লা এবং দূর পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র কেনার জন্য ইজরায়েলের সঙ্গে চুক্তি করেছে ভারত। ২০২৫ সালের মধ্যে ভারতের প্রতিরক্ষাব্যবস্থাকে আরও শক্তিশালী করার যে পরিকল্পনা মোদী নিয়েছেন, তারই অংশ হিসেবে এই চুক্তি করছে ভারত।   

জুলাইয়ে মোদী ইজরায়েল সফরে গেলে সেটা হবে কোনো ভারতীয় রাষ্ট্রপ্রধানের প্রথম ইজরায়েল সফর। সে ক্ষেত্রে সফরটি হতে চলেছে ঐতিহাসিক। এশিয়া বিষয়ক সিনিয়র বিশেষজ্ঞ শৈলেশ কুমারের মতে, “সফরটি একটা মাইলফলক হবে। দু’দেশের প্রতিনিধিরাই মনে করেন, তাঁদের প্রধান শত্রু সন্ত্রাসবাদ। ইজরায়েলের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের কথা মাথায় রেখে মোদীও মনে করেন, ইজরায়েলের সঙ্গে বন্ধুত্ব বাড়ালে, যুক্তরাষ্ট্রকে আরও কাছে টানা যাবে।” আরও এক বিশেষজ্ঞের মতে, “ইজরায়েলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা বাড়ানোর ব্যাপারে ভারতের এখন আর কোনো সংশয় নেই।”

উল্লেখ্য, ২০১৬-এর মার্চ পর্যন্ত তিন বছরে যুক্তরাষ্ট্র এবং রাশিয়ার পর ভারতে তৃতীয় বৃহত্তম অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ ছিল ইজরায়েল। তখন প্রায় ৬,৪০০ কোটি টাকায় ইজরায়েলের সঙ্গে দশটি প্রতিরক্ষা চুক্তি করেছিল ভারত।

আর্নস্ট এবং ইয়াং-এর নয়াদিল্লি শাখায়, ‘এরোস্পেস অ্যান্ড ডিফেন্স’-এর সহ সভাপতি অঙ্কুর গুপ্তর মতে, “ভারত এবং ইজরায়েলের সম্পর্ক শক্তিশালী হলেও, আগে কখনোই তেমন প্রচারে আসেনি। কিন্তু ইজরায়েল যে হেতু এখন ভারতের অন্যতম বৃহত্তম অস্ত্র সরবরাহকারী দেশ, তাই এই সম্পর্ক ভবিষ্যতে আরও মজবুত হবে।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here