খবরঅনলাইন ডেস্ক: শীত পড়ে যাওয়ার আগে ভারতে জঙ্গি ঢোকানোর জন্য সচেষ্ট ছিল পাকিস্তান। সেই পরিকল্পনা পুরোপুরি ভেস্তে দিল ভারতীয় সেনা। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে ‘পিন পয়েন্ট’ (এক্কেবারে নির্দিষ্ট লক্ষ্যে) হামলা চালিয়ে একাধিক জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে দিয়েছে ভারতীয় সেনা।

সেনা সূত্রে খবর, পাকিস্তানের প্ররোচনামূলক হামলার জবাব দিতে উরি, কেরান সেক্টরে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর পাক অধিকৃত কাশ্মীরে যে জঙ্গি লঞ্চপ্যাডগুলি ছিল, তাদের বেশ কয়েকটি নষ্ট করে দিতে সক্ষম হয়েছে ভারত। নির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে কেবল ওই লঞ্চপ্যাডগুলিতেই হামলা চালানো হয়। ফলে নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে সাধারণ মানুষের ওপরে এই হামলার কোনো প্রভাব পড়েনি বলে দাবি সেনার।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে সেনার এই অভিযানের কথা প্রচার করা হয়। সংবাদসংস্থা পিটিআই-ও এই খবর প্রকাশ করার পরে বিষয়টি নিয়ে শোরগোল পড়ে যায়। তার পরেই সেনার তরফে এক বিবৃতি জারি করে বলা হয়, পাক অধিকৃত কাশ্মীরের জঙ্গি লঞ্চপ্যাডে এই অভিযানের ঘটনা গত ১৩ নভেম্বর, শুক্রবারের। এর পর ভারতের তরফে আর কোনো হামলা চালানো হয়নি।

সেনা সূত্রের মতে, উপত্যকায় প্রবল তুষারপাত শুরু হওয়ার আগেই নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতে ঢোকার জন্য মরিয়া চেষ্টা চালাচ্ছে পাক জঙ্গি সংগঠনগুলি। পেছন থেকে তাদের সব রকম ভাবে মদত দিচ্ছে পাক সেনা। গত সপ্তাহের শুক্রবার ভোরে নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়ে ভারতে ঢুকতে গিয়ে একাধিক জঙ্গি মারা যায়।

এর পর থেকে ৭৭৮ কিলোমিটার দীর্ঘ নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর বিভিন্ন জনবসতি লক্ষ্য করে হামলা চালাতে শুরু করে পাক সেনা। ওই হামলায় ভারতের চার সেনা জওয়ান, বিএসএফের এক অফিসার ও চার নাগরিক মারা যান। আহতদের মধ্যে রয়েছে দুই স্কুল পড়ুয়াও। পাল্টা জবাব দেয় ভারতও। তখনই নিয়ন্ত্রণরেখার ওপারে লঞ্চপ্যাডগুলি ধ্বংস করেছে ভারতীয় সেনা।

চলতি বছরে ৪০৫২ বার পাক সেনা সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করেছে বলে দাবি ভারতীয় সেনার। গত দুই দশকের মধ্যে এটাই সর্বোচ্চ সংখ্যক সংঘর্ষ।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

উত্তরপ্রদেশে ভয়াবহ দুর্ঘটনা, নিহত ৬ শিশু-সহ ১৪ জন

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন