Thieves dig tunnel to steal petrol from Indian Oil pipeline

নয়াদিল্লি: প্রায় পাঁচ মাস আগে পরিত্যক্ত একটি যন্ত্রাংশ ফেলার জায়গা ভাড়া নিয়েছিল এক দল লোক। বাইরে থেকে দেখে মনে হতো তারা বোধহয় ওই জায়গায় পুরনো যন্ত্রাংশ ভাঙাচোরার কাজ করছে। ফলে সেখান থেকে আসা হাতুড়ির ঘায়ের শব্দ শুনে মোটেই অবাক হতেন না পথচলতি মানুষ। কিন্তু গত মঙ্গলবার সেখান থেকে আসা এক বিকট শব্দ পেয়ে ছুটে যান পার্শ্ববর্তী এলাকার বাসিন্দারা। সঙ্গে এল পুলিশও। এসে কী দেখলেন তাঁরা? কারখানার প্রাচীরের গা ঘেষেই গিয়েছে ইন্ডিয়ান অয়েলের পাইপলাইন। কারখানার মেঝেতে তৈরি করা হয়েছে গর্ত। যা একটি সুড়ঙ্গের মুখ হিসাবে ব্যবহার করার উদ্দেশ্য ছিল দুষ্কৃতীদের। ওই সুড়ঙ্গের দৈর্ঘ্য প্রায় ১৫০ ফুট এবং চওড়ায় ২.৫ ফুট।

নেতাজি সুভাষ ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির পাশে ওই পরিত্যক্ত জায়গাটি থেকে ওই দিন রাত ৮.৩০ নাগাদ ওই বিস্ফোরণের আওয়াজ পাওয়া যায়। পুলিশ জানিয়েছে, পাইপ লাইন থেকে গ্যাস চুরির লক্ষ্যেই ওই সুড়ঙ্গ তৈরি করা হয়েছিল গত মাসের পরিশ্রমে। তবে ওই জায়গাটির মালিককে জিজ্ঞাসাবাদ করে জুবের নামের এক দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেছে। জুবের জানিয়েছে, তারা দলবল মিলে ওই সুড়ঙ্গ পথ তৈরির কাজ করছে বেশ কয়েক মাস ধরেই। গর্তটিকে আড়াল করার জন্য সামনে কিছু পুরনো সোফা এবং ইট জড়ো করে রেখেছিল। মঙ্গলবার রাতে গর্তের মুখ থেকে সেগুলি সরানোর পরই ওই বিস্ফোরণ ঘটে।

পুলিশ জানিয়েছে, ইন্ডিয়ান অয়েলের ওই পাইপলাইন দিয়ে পেট্রোল, ডিজেল এবং বিমানের জ্বালানি সরবরাহ করা হতো। ওই দুষ্কৃতী দলটির উদ্দেশ্য ছিল সেই পাইপ লাইন থেকেই জ্বালানি তেল চুরি করে বিক্রি করা। সেই উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে চুরি করা জ্বালানি তেল মজুতের জন্য বেশ কিছু খালি জলের জলের ট্যাঙ্কও সেখানে জড়ো করেছিল।  এমনকী কয়েক জন ক্রেতাও তারা ঠিক করে ফেলেছিল। তাদেরও খোঁজ করছে পুলিশ। পাশাপাশি ওই জমির মালিক এবং জুবের-সহ তার সঙ্গীদের বিরুদ্ধে মামলা রজু করে তদন্ত চালানো হচ্ছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন