মানবশরীরে পরীক্ষার অনুমতি পেল ভারতের প্রথম কোভিড ১৯ টিকা কোভ্যাক্সিন

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভারতে তৈরি একমাত্র টিকা কোভ্যাক্সিন (COVAXIN) মানবশরীরে পরীক্ষার অনুমোদন পেল। ভারতে করোনাভাইরাসের এই প্রতিষেধকটি তৈরি করছে ভারত বায়োটেক (Bharat Biotech)।

কোভ্যাক্সিন তৈরিতে ভারত বায়োটেককে সহযোগিতা করছে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর, ICMR) ও ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি (এনআইভি)। মানবশরীরে কোভ্যাক্সিন–এর প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা (human clinical trials) চালানোর অনুমতি দিয়েছে ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনেরাল অব ইন্ডিয়া (ডিসিজিআই, DCGI)। আশা করা যায়, আসন্ন জুলাই মাসেই এই পরীক্ষা শুরু হবে।

আরও পড়ুন: টিকা তৈরির দৌড়ে এগিয়ে ব্রিটিশ সংস্থা অ্যাস্ট্রাজেনেকা, বলল হু

পুনের এনআইভি-তে (NIV) সার্স-কোভ-২ স্ট্রেনকে আলাদা করা হয় এবং তা পাঠিয়ে দেওয়া হয় ভারত বায়োটেকে। সর্বাধিক জৈব নিরাপত্তায় এই দেশজ টিকা তৈরি হচ্ছে হায়দরাবাদের জেনোম ভ্যালিতে ভারত বায়োটেকের হাইকনটেনমেন্ট ব্যবস্থার মধ্যে।

টিকাটির প্রি-ক্লিনিক্যাল সমীক্ষা এবং নিরাপত্তা ও প্রতিরোধ ক্ষমতা সংক্রান্ত সমীক্ষার ফল কোম্পানি জমা দেওয়ার পরেই কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রকের অধীন সেন্ট্রাল ড্রাগ স্ট্যান্ডার্ড কন্ট্রোল অর্গানাইজেশনের (সিডিএসসিও, CDSCO) ডিসিজিআই মানবশরীরে প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের পরীক্ষা চালানোর অনুমতি দিয়েছে।

টিকা তৈরি হওয়ার কথা ঘোষণা করে ভারত বায়োটেকের চেয়ারম্যান ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর ড. কৃষ্ণ এল্লা বলেন, “কোভিড ১৯ (COVID 19) প্রতিরোধী ভারতের প্রথম দেশজ টিকা কোভ্যাক্সিন-এর কথা ঘোষণা করতে পেরে আমরা গর্বিত। এই টিকা তৈরির কাজে আইসিএমআর এবং এনআইভি-র সহযোগিতা আমাদের সহায়ক হয়েছে। সিডিএসসিও-এর সক্রিয় সমর্থন এবং পথপ্রদর্শন এই প্রকল্পে অনুমোদন পেতে আমাদের সাহায্য করেছে। মালিকানাগত যে প্রযুক্তি আমাদের অধিকারে আছে, তা এ ব্যাপারে কাজে লাগাতে আমাদের রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট টিম এবং উৎপাদক টিম অক্লান্ত পরিশ্রম করেছে।”

পোলিও, র‍্যাবিস, জাপানিজ এনসেফেলাইটিস, জিকা ও চিকুনগুনিয়ার মতো বিভিন্ন ভাইরাসঘটিত রোগের টিকা উদ্ভাবনের খ্যাতি আছে ভারত বায়োটেকের।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন