আগেই তাকে গ্রেফতার করেছিল সিবিআই। এবার যুক্তিবাদী নরেদ্র দাভালকর খুনের চার্জশিটে হিন্দু জন জাগৃতি সমিতির নেতা ড. বীরন্দ্রে তাওড়েকে মূল ষড়যন্ত্রকারী হিসাবে উল্লেখ করল কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা। পুণেতে সিবিআই-এর বিশেষ আদালতে এই চার্জশিট পেশ করা হয়। সূত্রে জানা গিয়েছে, চার্জশিটে হিন্দু সংগঠন সনাতন সংস্থার দুই সদস্যেরও নাম উল্লেখ করা হয়েছে।

চলতি বছরের জুন মাসে সিবিআই তাওড়েকে গ্রেফতার করে। গোয়েন্দা সংস্থার তদন্ত রিপোর্ট অনুযায়ী তাওড়ে ও সনাতন সংস্থার দুই সদস্য মিলে দাভালককে মারার পরিকলনা করে। তাদের খুনের পরিকল্পনা সংক্রান্ত ই-মেলও চালাচালি হয়। তা জানতে পারার পরই তাওড়েকে গ্রেফতার করে সিবিআই। ২০১৩ সালের ২০আগস্ট মনিং ওয়াক করার সময় পুণেতে বাড়ির সামনে খুন হন তিনি।

তদন্তে সিবিআই জানতে পেরেছে, ২০০৭ সালেই দাভালকরকে খুনের পরিকল্পনা করা হয়। ২০০৯-এ গোয়া বিস্ফোরণ পর সেই পরিকল্পনা স্থগিত রাখা হয়। পরে ২০১৩ সালে ফের দাভালকরকে খুনের পরিকল্পনা করা হয়। সিবিআই চাজশিটে জানিয়েছে, সনাতন সংস্থার অফিসে হানা দিয়ে একটি হার্ড ডিস্ক উদ্ধার করা হয়েছে। সেই হার্ড ডিস্ক ঘেঁটে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এসেছে। ভাসি, থানে এবং গোয়ায় ‘সফল ভাবে’ বিস্ফোরণ ঘটাতে না পেরে সনাতন সংস্থা ‘স্ট্র্যাটেজি’ পালটায়। ‘হিন্দুত্ব বিরোধী’ ব্যক্তিকে বেছে বেছে খুন করার সিদ্ধান্ত নেয় তারা। দাভালকরকে খুন সেই ট্র্যাটেজিরই অংশ।    

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here