ওয়েবডেস্ক: পঞ্জাবের ১৩টি লোকসভা আসনের মধ্যে এ বারের ভোটে ১০টি কেন্দ্র সহযোগী শিরোমণি অকালি দলকে ছেড়ে দিয়ে তিনটিতে প্রার্থী দিচ্ছে বিজেপি। এই তিনটির মধ্যে একটিতে, অমৃতসরে পদ্ম-প্রতীকে প্রার্থী হতে পারেন বলিউড অভিনেতা সানি দেওল? বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের সঙ্গে তাঁর সাক্ষাতের পর তেমন জল্পনাই তুঙ্গে।

তিনি কি সত্যিই প্রার্থী হচ্ছেন লোকসভা ভোটে? এমন প্রশ্নের উত্তরে সাংবাদিকদের তিনি জানিয়েছেন, “কথাটা আমার কানেও এসেছে। আমি ওঁর (অমিত শাহ) সঙ্গে দেখা করেছি মাত্র। ছবিও তুলেছি। ব্যস, এই টুকুই”।

প্রসঙ্গত এর আগে প্রত্যক্ষ রাজনীতির সঙ্গে সানির কোনো সম্পর্ক না থাকলেও বলিউডের একাধিক ছবিতে তাঁকে দেখা গিয়েছে রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে টক্কর দিতে। তা ছাড়া দেশপ্রেম মূলক একাধিক ছবিতেও সানির ইমেজ যথেষ্ট বিস্তৃত। অন্য দিকে তাঁর পরিবারে রাজনীতি নতুন নয়। এর আগে তাঁর বাবা ধর্মেন্দ্র লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

গত ২০০৪ সালের লোকসভা ভোটে রাজস্থানের বিকানের থেকে বিজেপির টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ধর্মেন্দ্র। প্রয়াত প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ী পুনরায় কেন্দ্রে সরকার গড়তে না পারলেও সে বার বিকানেরে জয়ী হন ধর্মেন্দ্র। এ বারের লোকসভা ভোটের প্রচারেও দেখা যাচ্ছে ধর্মেন্দ্রকে। সম্প্রতি স্ত্রী হেমা মালিনীর মথুরা কেন্দ্রে প্রচারে গিয়েছিলেন ধর্মেন্দ্র।

তবে সানির দিক থেকে তাঁর প্রার্থী হওয়া নিয়ে সদর্থক কোনো ইঙ্গিত মেলেনি। সেই কারণেই সম্ভবত অমৃতসরের জন্য আরও দুই বিকল্প মুখকে হাতের কাছে রেখেছে বিজেপি। এঁদের একজন আরও এক বলিউড তারকা পুনম ধিঁলো। তিনি ইতি মধ্যেই বিজেপির সঙ্গে যুক্ত। বর্তমানে মহারাষ্ট্র শাখার সহ-সভাপতি। পাশাপাশি ওই কেন্দ্রের জন্যই অধ্যাপক রাজিন্দর সিংহ ছিনার নামও বিবেচনায় রাখা হয়েছে। রাজিন্দর খালসা কলেজ গভর্নিং কাউন্সিলের সচিব।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here