সুপ্রিম কোর্টের রাফাল রায়ে বিজেপির জয় নিয়ে ধোঁয়াশা

0
Narendra Modi
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টে ফ্রান্সের সঙ্গে ভারতের রাফাল চুক্তি সংক্রান্ত মামলায় রায় ঘোষিত হয়েছে। সেই রায় আসার পর এক দিকে যেমন কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপি ম্যাচ জয়ের উল্লাসে মেতেছে, তেমনই জাতীয় কংগ্রেসের তরফে রায়কে স্বাগত জানিয়েও জয়েন্ট পার্লামেন্টারি কমিটি বা জেপিসি গঠনের দাবি জোরালো হয়ে উঠল। অন্য দিকে একাধিক বিশিষ্ট আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টের এই রায়কে স্পষ্টতই ‘ভুল’ আখ্যা দিতেও ছাড়ছেন না। কিন্তু কেন?

প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ডিভিশন বেঞ্চ এ দিন বলে, ‘‘যুদ্ধবিমান কেনার প্রযুক্তিগত এবং পদ্ধতিগত বিষয় নিয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারি না।’’ পাশাপাশি বিচারপতিরা বলেন, ‘‘এমন কোনও তথ্যগত প্রমাণ আমরা খুঁজে পাইনি, যাতে মনে হয় যে কাউকে বেআইনি ভাবে সুবিধা দেওয়া হয়েছে।’’

কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের রায় ঘোষণার পরই রাফাল নির্মাণকারী দাসৌ-র অফসেট পার্টনার অনিল অম্বানি যেমন চুক্তিতে বেনিয়মের অভিযোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন, তেমনই বিজেপি সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ সাংবাদিক বৈঠকে ডেকে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে সত্যের জয় হিসাবে বর্ণনা করেন।

সম্প্রতি পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির ভরাডুবির পর থেকে বেশ কয়েক দিন ধরেই প্রকাশ্যে আসছিলেন না অমিত। এ দিন সুপ্রিম কোর্টের রায় ঘোষণার পরই তিনি সাংবাদিক সম্মেলনে অংশ নিয়ে দাবি করেন, রাফালের গুণগত মান নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেনি সুপ্রিম কোর্ট। এমনকি দর নিয়েও কোনো রকমের সন্দেহের অবকাশ রাখেনি সর্বোচ্চ আদালত। ফলে এই রায়ের পর মিথ্যা প্রচারের অপরাধে জনতা এবং সেনার কাছে রাহুল গান্ধীর ক্ষমা চাওয়া উচিত।

যদিও অমিতের দাবিকে মান্যতা দিতে নারাজ বিরোধীরা। এ ব্যাপারে মামলার আইনজীবী প্রশান্ত ভূষণ স্পষ্ট করেই জানিয়ে দেন, ‘‘এই রায় ভুল। কোনো ডিল বা চুক্তি নিয়ে দুর্নীতি বা বেনিয়মের অভিযোগ উঠলে, আদালতের উচিত তার তদন্তের নির্দেশ দেওয়া। কিন্তু আদালত সে ধরনের কোনো পদক্ষেপ নিল না।’’

আরও পড়ুন: রাফেল চুক্তি নিয়ে কোনো তদন্ত নয়, জানিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট

এ ব্যাপারে প্রবীণ কংগ্রেস নেতা তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কপিল সিব্বল এ দিন দাবি করেন, “একমাত্র জেপিসির সামনে প্রদানমন্ত্রী উত্তর দিলেই পুরো বিষয়টা পরিষ্কার হতে পারে। এ ব্যাপারে সুপ্রিম কোর্টে কোনো ফয়সলাই হয়নি।”

একই সঙ্গে তিনি অমিতের মন্তব্যকে শিশুসুলভ হিসাবে ব্যাখ্যা করে বলেন, “অমিত নিজের বক্তব্যকে সংশোধন করুন”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.