নয়াদিল্লি: সোমবার দুপুরে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ঘোষণা করলেন ক্ষমতায় এলে দেশের কুড়ি শতাংশ গরিবের জন্য বছরে ৭২ হাজার টাকা আয় নিশ্চিত। সন্ধ্যায় সেটাকে ‘ধাপ্পাবাজি’ বলে কটাক্ষ করলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি।

ইন্দিরা গান্ধীর আমলে দেশে দারিদ্র বেড়েছে, এই কথা বলে জেটলি জানান, দারিদ্র দূরীকরণে কংগ্রেসের রেকর্ড অত্যন্ত খারাপ। ভুয়ো ঘোষণা করা কংগ্রেসের অভ্যাসে পরিণত হয়েছে, এই কথা বলে জেটলি বলেন, “২০০৮-এ ৭২ হাজার টাকা কৃষিঋণ মকুবের কথা বলেছিল কংগ্রেস, কিন্তু মকুব করেছিল মাত্র ৫২ হাজার টাকা। সিএজি রিপোর্টে দেখা যায় দিল্লির একটি ব্যবসায়ী সেই টাকা আত্মসাৎ করেছেন।”

আরও পড়ুন: সোনা বিতর্কে পদক্ষেপ করল নির্বাচন কমিশন

জেটলির দাবি, রাহুল যে অর্থের ঘোষণা করেছেন, মোদী তাঁর দেড়গুণ অর্থসাহায্য করছেন। তিনি বলেন, “আমরা এখনই ৭৫ হাজার টাকা করে সারে ভর্তুকি দিচ্ছি। স্বাস্থ্য খাতে আরও কুড়ি হাজার টাকা দিচ্ছি। এই অর্থের ৭০ থেকে ৮০ শতাংশই আমরা ব্যাঙ্কে ট্রান্সফার করে দিচ্ছি।” সেই সঙ্গে গরিব এবং কৃষকদের কল্যাণার্থে আরও ১.৮ লক্ষ কোটি টাকা দেওয়া হচ্ছে বলেও দাবি করেন জেটলি।

উল্লেখ্য, এ দিন দুপুরে রাহুল গান্ধী বলেন, কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে দেশের কুড়ি শতাংশ দরিদ্র পরিবারের জন্য বছরে ৭২ হাজার টাকা আয় নিশ্চিত করবে সরকার। তিনি বলেন, “দেশের কুড়ি শতাংশ মানুষকে বছরে ৭২ হাজার টাকা দেওয়া হবে।” এই টাকা তাঁদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি পৌঁছে যাবে বলে জানান রাহুল। এই প্রকল্পটির নাম দেওয়া হয়েছে ‘ন্যায়’।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here