আড়াই মাস পর এই বিশেষ দিনে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ

0

ওয়েবডেস্ক: আগামী ৩১ অক্টোবর, পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ। ঘটনাক্রমে ওই দিন সর্দার বল্লভভাই পটেলের জন্মদিন।

জম্মু-কাশ্মীরকে দু’ভাগ করার প্রস্তাবে শুক্রবার সম্মতি দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। ওই দিনই রাজ্য পুনর্গঠন বিলে স্বাক্ষর করেন তিনি। এর ফলে রাজ্য ভেঙে তৈরি হচ্ছে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল – জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ।

কেন্দ্রের পরিকল্পনা অনুযায়ী জম্মু-কাশ্মীরে থাকবে ১০৭ আসনের বিধানসভা। পরে তা বাড়িয়ে ১১৪ করা হবে। ২৪টি আসন খালি থাকবে কারণ তা পাক অধিকৃত কাশ্মীরে পড়ছে। অন্য দিকে, কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল লাদাখে কোনো বিধানসভা থাকবে না। সেটি হবে চণ্ডীগড়ের মতো। তবে জাতির উদ্দেশে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানিয়েছেন, কাশ্মীর উপত্যকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে গেলেই আবার রাজ্যের মর্যাদা ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন অসুস্থ অরুণ জেটলি, ভরতি দিল্লির এইমসে

উল্লেখ্য, গত সোমবার রাষ্ট্রপতির নির্দেশনামার মধ্যে দিয়ে সংবিধানের ৩৭০ নম্বর অনুচ্ছেদ রদ করে দেওয়া হয়। স্বাভাবিক ভাবে স্থগিত হয়ে যায় ৩৫এ অনুচ্ছেদও। প্রধানমন্ত্রীর দাবি, উপত্যকার মানুষকে সমানাধিকার দেওয়ার জন্য এই অনুচ্ছেদগুলি রদ করা দরকার ছিল।

এ দিকে, ৩৭০ অনুচ্ছেদের কার্যকারিতা রদ করার পর বৃহস্পতিবার পর্যন্ত চূড়ান্ত কড়াকড়ি ছিল কাশ্মীর উপত্যকায়। শুক্রবার জুম্মা উপলক্ষ্যে তা কিছুটা শিথিল করা হয়। যদিও শ্রীনগরের রাস্তায় বিক্ষিপ্ত বিক্ষোভও হয়েছে, তা-ও পরিস্থিতি ছিল মোটের ওপর শান্তই। শনিবার সকাল থেকে জম্মু শহরেও সব স্কুল খুলে দেওয়া হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here