Naresh Goyal
জেট এয়ারওয়েজের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান নরেশ গয়াল

নয়াদিল্লি: ভোটের মুখে জেটকে আরও ঋণ দিতে রাজি হয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলি। ফলে ভোটের মুখে ঘুরে দাঁড়ানোর আরও একটা সুযোগ পেল আর্থিক সঙ্কটে জেরবার জেট এয়ারওয়েজ। পাশাপাশি জেটের বোর্ড থেকে সোমবারই পদত্যাগের কথা ঘোষণা করেছেন কর্ণধার নরেশ গয়াল।

মূলত এসবিআই এবং পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কই জেট এয়ারওয়েজকে এই বাড়তি ঋণ দেবে, বৈঠকে এমনটাই স্থির করেছে ঋণদাতা ব্যাঙ্কগুলোর গোষ্ঠী।

ঋণের কিস্তি মেটাতে না পারা, নগদের সমস্যা, কর্মীদের বকেয়া, বিভিন্ন দিক থেকে রীতিমতো কোণঠাসা জেট এয়ারওয়েজ। তাদের পুনর্গঠন নিয়ে স্টেট ব্যাঙ্কের নেতৃত্বাধীন ঋণদাতাদের গোষ্ঠীর (এসবিআই, পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক, কানাড়া ব্যাঙ্ক, ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্ক, ইলাহাবাদ ব্যাঙ্ক) সঙ্গে নিয়মিত কথা বলছিলেন সংস্থার কর্তৃপক্ষেরা। পাশাপাশি সাহায্যের জন্য প্রধানমন্ত্রীকেও চিঠি দেন তাঁরা। তারপরই প্রশ্ন উঠতে শুরু করে ভোটের মুখে এতজনের কাজ হারানোর দায় প্রধানমন্ত্রী নিজের ঘাড়ে নেবেন কি না।

আরও পড়ুন মোদীর পথে হেঁটে একই দিনে রাজ্যে জোড়া সভা অমিত শাহেরও

এই ঋণের ফলে ইউপিএ আমলে কিংফিশার এয়ারলাইন্স যে সুবিধা পেয়েছিল, সেই একই সুবিধা পেয়ে গেল জেটও। ফলে কিংফিশারকে সুবিধা পাইয়ে দেওয়ার যে অভিযোগ বিজেপি এতদিন কংগ্রেস তথা ইউপিএ-এর বিরুদ্ধে করে আসছিল, তা অনেকটাই ভোঁতা হয়ে গেল সোমবারের পর।

এ দিকে নরেশ গয়াল বর্তমানে লন্ডনে রয়েছেন। সেখান থেকেই জেটের ২৩,০০০ কর্মীকে পদত্যাগের কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। গয়ালের পরিবর্তে জেটের বর্তমান সিইও বিনয় দুবের ঘাড়েই জেটকে সঙ্কট থেকে বার করার বাড়তি দায়িত্ব চাপাতে চলেছে সংস্থার পরিচালন বোর্ড।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here