রাঁচি: ‘চোর’ ধরতে গিয়ে অমানবিক কাণ্ড ঘটিয়ে ফেললেন ঝাড়খণ্ডে এক স্কুলের অধ্যক্ষা। ছাত্রদের মোমবাতির শিখার ওপরে হাত রাখতে বলে বিতর্কে জড়িয়েছেন তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

গত বুধবারের ঘটনা। ওই দিন রাজ্যের এক বেসরকারি স্কুলের অধ্যক্ষা, শান্তি হেমব্রমের কাছে এক ছাত্র অভিযোগ জানায় যে তার কাছে থাকা দু’শো টাকা তার সহপাঠীদের মধ্যে কেউ চুরি করেছে। সেই ‘চোর’ ধরার জন্য এই ‘অভিনব’ পন্থা নেন শান্তিদেবী। তেরো জন ‘সন্দেহভাজন’কে তলব করেন তিনি।

পুলিশ জানিয়েছে, আগুনের ভয়ে মূল ‘অভিযুক্ত’ তার ‘দোষ’ স্বীকার করে নিতে পারে, এমনই ধারণা হয়েছিল অধ্যক্ষার। কিন্তু হল অন্য রকম। সবাইকে আগুনের ওপরে হাত রাখতে বললে ছ’জন তাড়াতাড়ি তাদের হাত আগুনের ওপর থেকে সরিয়ে নেয়। কিন্তু সাত জনের হাত আগুনে পুড়ে যায়।

এর মধ্যে একজনকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। এক দিন হাসপাতালে থাকার পর বৃহস্পতিবার সে ছাড়া পেয়ে যায়। বৃহস্পতিবারই স্কুলে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন অভিভাবকরা। এর পরেই শান্তিদেবীকে স্কুল থেকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেয় স্কুল কর্তৃপক্ষ।

পুলিশ জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই স্কুল কর্তৃপক্ষ এবং অভিভাবকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিয়েছেন শান্তিদেবী।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন