Jitendra Singh

ওয়েবডেস্ক: পাথরবাজদের হাতে কুইক রিঅ্যাকশন টিমের (কিউআরটি) জওয়ান রাজেন্দ্র সিংয়ের মর্মান্তিক মৃত্যুর পরেও কাশ্মীরের নেতাদের নীরবতী দেখে ‘ফোস্কা ফেলা’ আক্রমণের পথে হাঁটলেন কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী জীতেন্দ্র প্রসাদ। তিনি বলেন, তাঁরা (কাশ্মীরের নেতারা) হুরিয়ত কনফারেন্সের অনুমতি না মিললে টয়লেট পর্যন্ত যান না। উল্লেখ্য, এক দল যুবকের ছোড়া পাথরে আঘাত লাগে রাজেন্দ্রর মাথায়। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েও বাঁচানো যায়নি।

জীতেন্দ্র বলেন, “গত কাল (শনিবার) আমি এবং রাজ্যপাল (সত্য পাল) একটি সভায় অংশ নিয়েছিলাম। তিনি হুরিয়ত সম্পর্কে বলছিলেন। তিনি বলছিলেন, পাকিস্তানের অনুমতি ছাড়া হুরিয়ত টয়লেটে পর্যন্ত যায় না। আমি তাঁকে বলি, কাশ্মীরের নেতারা তো হুরিয়তের অনুমতি না মিললে টয়লেট চেপে রাখে। ফলে টয়লেট চেপে রেখে তারা লিভারের কৌষ্ঠকাঠিন্যের শিকার হয়”।

আক্রমণের গতি বাড়িয়ে তিনি বলেন, ভারতীয় সেনা যদি উল্টে পাথরবাজদের উপর গুলি চালায়, তা হলে ওই কাশ্মীরী নেতারাই আবার মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে রাস্তায় নেমে পড়বেন।

উল্লেখ্য, গত শনিবারই সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত পাথরবাজদের উদ্দেশে চরম সতর্কতা বার্তা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, পাথরবাজরা নিজেদের সংযত না করলে যে সমস্ত যুবক এই কাজে যুক্ত রয়েছেন, সেনা তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেবে। রাওয়াত বলেন, “তারা (পাথরবাজরা) কেন আমাদের জওয়ানদের লক্ষ্য করে আক্রমণ চালাচ্ছে? দয়া করে আমাকে বলুন, ওরা কেন সন্ত্রাসবাদীদের দিকে পাথর নিক্ষেপ করছে না?   সর্বদা তাদের আক্রমণের নিশানা হয়ে চলেছে ভারতীয় সেনা বাহিনী। কিন্তু এ বার চুপ করে বসে থাকব না। উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here