Jain Monk Nayan Sagar
অভিযুক্ত সাধু নয়ন সাগর। ছবি: ডিএনএ থেকে

ওয়েবডেস্ক: এক ইঞ্জিনিয়ারিং স্নাতক তরুণীর নিখোঁজ-কাণ্ডে ইতিমধ্যেই হরিদ্বার এবং মুজফ্‌ফরনগর পুলিশের খাতায় উঠেছে তাঁর নাম। এ বার তাঁরই এক সেবাদারের চাঞ্চল্যকর বক্তব্যে আর বিপাকে পড়লেন জৈন সাধু নয়ন সাগর।

নয়নের সঙ্গী হিসাবে থাকতেন সেবাদার সৌগন্ধ। তিনি অভিযোগ করেছেন, “দিল্লিতে এক বছর থাকার সময় তিনি দেখেছেন প্রতিরাতে চড়া দামের ‘কলগার্লের’ অর্ডার দিতেন ওই সাধু। এবং এটা ছিল একটা নিয়মিত ব্যাপার”। সৌগন্ধ জানিয়েছেন, “বাজারের সব থেকে দামি ‘কলগার্ল’দের সঙ্গে রাত্রিযাপন করতেন সাগর। এর জন্য তিনি বড়ো অঙ্কের টাকাও খরচ করতেন। চড়া দরের সেই কলগার্লরা সারা রাত সাগরের সঙ্গে থাকার পর সকাল হলেই বেরিয়ে যেতেন”।

কিন্তু তখন কেন মুখ খোলেননি সৌগন্ধ? তিনি বলেন, “আমি এমন ঘটনা প্রকাশ্যে নিয়ে এসে জৈন সমাজের ভাবাবেগে আঘাত করতে চাইনি। কিন্তু নিখোঁজ ওই তরুণীর সঙ্গে তাঁর ভিডিও দেখার পরই আমি নিশ্চিত এই ঘটনার নেপথ্যেও তাঁর হাত আছে। শুধু ওই তরুণীকে অপহরণ নয়, বিভিন্ন বয়সের মহিলার সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের কথা এখন আর অজানা নয়”।

এ দিকে দিল্লি এবং গাজিয়াবাদে জৈন সাধুরা মিলিত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, ওই জায়গায় ২২ জৈন মন্দিরে নয়নের প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকবে। যত দিন পর্যন্ত না তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগ থেকে মুক্ত হচ্ছেন, তত দিন ওই নিষেধাজ্ঞা বজায় থাকবে।

আরও পড়ুন: প্রেমিকের সঙ্গে আপত্তিকর অবস্থায় হাতেনাতে পাকড়াও হওয়ার পর স্বামীর পুরুষাঙ্গে কামড় স্ত্রীর!

হরিদ্বার পুলিশের পর মুজফ্‌ফরনগর পুলিশও সাগরের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৬৫ ধারায় অভিযোগ রুজু করেছে। যদিও নয়ন বলেছেন, এ সব মিথ্যা। তাঁর বিরোধীপক্ষ তাঁকে হেয় করার জন্যই এমন চক্রান্ত করেছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন