রায়পুর: গত বছর অক্টোবরের কথা। ভয় দেখিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগে দিল্লি থেকে সাংবাদিক বিনোদ বর্মাকে গ্রেফতার করে ছত্তীসগঢ়ের পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে ভয় দেখিয়ে টাকা নেওয়ার অভিযোগ তোলা হয়। কিন্তু সেই অভিযোগ প্রমাণ করতে পারেনি সিবিআই। বছর ঘুরতে তিনিই হয়ে গেলেন রাজ্যের নবনিযুক্ত মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শদাতা।

রায়পুর পুলিশের দাবি ছিল ওই সাংবাদিক তৎকালীন ছত্তীসগঢ় সরকারের এক মন্ত্রীকে ভয় দেখিয়ে টাকা তোলার চেষ্টা করছিলেন। বিনোদের পালটা দাবি ছিল, তাঁর কাছে ওই মন্ত্রী অর্থাৎ রাজেশ মুনাতের যৌন কেলেঙ্কারির ভিডিও টেপ রয়েছে। তা ফাঁস হওয়া ঠেকাতেই গ্রেফতারি। যদিও রাজেশ মুনাত দাবি করেন, ওই ভিডিওটি নকল। তবে ওই সাংবাদিককে গ্রেফতারের পরেই বিভিন্ন মহলে সমালোচিত হয় নরেন্দ্র মোদী সরকার। বিরোধীদের অভিযোগ ছিল, এ ভাবে সাংবাদিকদের গ্রেফতার করে আদতে দেশে অঘোষিত জরুরি অবস্থায় চালু করতে চাইছে সরকার।

বিনোদ বর্মা।

এর পর গোটা ঘটনার তদন্তভার সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেয় রমন সিংহ সরকার। কিন্তু অন্য দিকে ৬০ দিনের মধ্যে বিনোদ বর্মার বিরুদ্ধে পুলিশ চার্জশিট পেশ করতে না পারায় জামিন পেয়ে যান বিনোদ। ছত্তীসগঢ়ের নবনিযুক্ত মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেলের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত ছিলেন বিনোদ। তাই বৃহস্পতিবারই তাঁকে রাজনৈতিক পরামর্শদাতা করেছেন বাঘেল।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন