গত পাঁচ বছর বর্ষায় এ রকম জুন দেখেনি দেশ!

0

ওয়েবডেস্ক: গোটা দেশে ৩২.৮ শতাংশ ঘাটতি নিয়ে জুন মাস শেষ করল বর্ষা। জুনের নিরিখে গত পাঁচ বছরে সর্বনিম্ন বৃষ্টি হয়েছে। এমনই তথ্য পাওয়া যাচ্ছে কেন্দ্রীয় আবহাওয়া দফতর থেকে। তবে এরই মধ্যে আশার বাণী জুলাই এবং আগস্টে স্বাভাবিক বৃষ্টি হবে দেশ জুড়ে।

সাম্প্রতিক ইতিহাসে সব থেকে কম বৃষ্টি হয়েছিল ২০১৪-এর জুনে। ৪২ শতাংশ ঘাটতি নিয়ে সে বার জুন শেষ করেছিল বর্ষা।

উল্লেখ্য, বর্ষার চার মাসের মধ্যে জুনেই সব থেকে কম বৃষ্টি হয়। মোট বর্ষার মাত্র ১৮ শতাংশ বৃষ্টি হয় জুনে। অন্য দিকে জুলাই এবং আগস্টে বৃষ্টি হয় যথাক্রমে ৩৩ এবং ৩০ শতাংশ। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, এল নিনোর পরিস্থিতি জারি থাকার জন্যই এই পরিমাণ কম বৃষ্টি হয়েছে দেশ জুড়ে। এক আধিকারিকের কথায়, “এল নিনো দুর্বল হচ্ছে। কিন্তু জুনের এত ঘাটতি বর্ষার পেছনে এল নিনো একটা কারণ হতে পারে। কিন্তু কম বৃষ্টির জন্য এল নিনোই একমাত্র কারণ হতে পারে না। আমরা বিস্তারিত পর্যালোচনা করার চেষ্টা করছি।”

আরও পড়ুন উত্তরবঙ্গের একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে কেন্দ্রের ওপরে চাপ বাড়াচ্ছে খোদ বিজেপিই

জুনে সব থেকে কম বৃষ্টি হয়েছে দক্ষিণবঙ্গ, মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, কেরল, তেলঙ্গানা এবং উত্তরপূর্ব ভারতে। এই সব অঞ্চলে ৩০ থেকে ৬০ শতাংশ পর্যন্ত বৃষ্টির ঘাটতি ছিল। দেশের মোট ৩৬টা অঞ্চলের মধ্যে ৩০টা অঞ্চলেই জুনে বৃষ্টির ঘাটতি ছিল। যে ছ’টি অঞ্চলে বৃষ্টি স্বাভাবিক হয়েছে সেগুলি হল উত্তর কর্নাটক, কোঙ্কন-গোয়া উপকূল, গুজরাত, পূর্ব রাজস্থান এবং জম্মু-কাশ্মীর।

তবে আগামী দিনে বৃষ্টির ছবিটা ক্রমশ উন্নত হবে বলেই মনে করছে আবহাওয়া দফতর। এর কারণ হিসেবে বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপের কথা বলা হয়েছে। নিম্নচাপটি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়ে ওড়িশা হয়ে মধ্য ভারতের দিকে যাবে। এর ফলে মাত্রাতিরিক্ত বৃষ্টি হতে পারে ওড়িশা, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তীসগঢ়, বিদর্ভ, মরাঠাওয়াড় এবং পূর্ব রাজস্থানে। ফলে বৃষ্টির ছবিটা বেশ কিছুটা উন্নত হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.