নয়াদিল্লি: সেনাবাহিনীতে নিয়োগের নতুন প্রকল্প অগ্নিপথ ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই বিক্ষোভে উত্তাল দেশ। এরই মধ্যে সেই বিতর্কে ঘৃতাহুতি করলেন বিজেপি নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয়।

চার বছরের মেয়াদে যুবক-যুবতীদের অগ্নিপথ প্রকল্পে নিয়োগ করবে কেন্দ্র। চার বছরের জন্য চুক্তির ভিত্তিতে সশস্ত্র বাহিনীর তিন শাখায় (স্থল, নৌ এবং বায়ুসেনা) যোগ দিতে পারবেন তাঁরা। এঁদের বলা হবে ‘অগ্নিবীর’।

অগ্নিবীরদের নিয়ে কৈলাসের বক্তব্যের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে তাঁকে বলতে শোনা যাচ্ছে, “একজন অগ্নিবীর চার বছরের সামরিক প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর চাকরি ছেড়ে দিলে ১১ লক্ষ টাকা পাবে। সে অগ্নিবীরের ব্যাজ পরবে। আমি যদি বিজেপি অফিসের নিরাপত্তার জন্য কাউকে নিয়োগ করতে চাই, তা হলে একজন অগ্নিবীরকেই অগ্রাধিকার দেব”।

রবিবার বিজেপির জাতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র এ ধরনের মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছে বিরোধী দলের নেতারা। সরব হয়েছেন কংগ্রেস, আপ, তৃণমূল, শিবসেনা এবং এআইএমআইএম নেতৃত্ব।

প্রসঙ্গত, সেনায় চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের জন্য চলতি সপ্তাহের মঙ্গলবার অগ্নিপথ প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। এই চুক্তিভিত্তিক ভাবে নিয়োজিত সেনাদের ২৫ শতাংশকে স্থায়ী চাকরির আশ্বাসও দিয়েছে কেন্দ্র। সে ক্ষেত্রে আরও ১৫ বছর তাঁরা চাকরির সুযোগ পাবেন। কিন্তু বাকি ‘অগ্নিবীর’-দের বীরত্বের মেয়াদ মাত্র চার বছরই। সে ক্ষত্রে বিদায়ী ৭৫ শতাংশ অগ্নিবীরেরা অবসরকালে কেন্দ্রের থেকে করমুক্ত প্রায় ১২ লক্ষ টাকা ভাতা পাবেন।

আরও পড়তে পারেন:

রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী বাছতে শরদ পওয়ারের ডাকা বৈঠকে যাচ্ছেন না মমতা, যোগ দিচ্ছেন অভিষেক

‘অগ্নিপথ’ প্রত্যাহারের কোনো প্রশ্ন নেই, প্রকল্পের ব্যাখ্যা করে জানিয়ে দিল সেনা

অনুগামীদের চুপচাপ বসে যাওয়ার বার্তা, বঙ্গ-বিজেপিতে বিদ্রোহের আবহে দুধকুমারের পাশে অনুপম

বিহার জ্বলছে, বিজেপি-জেডিইউ নিজেদের মধ্যে লড়ছে! ‘অগ্নিপথ’ বিক্ষোভ নিয়ে মুখ খুললেন প্রশান্ত কিশোর

পওয়ার-আবদুল্লা সরে দাঁড়িয়েছেন, রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে গোপালকৃষ্ণ গান্ধীর নামেই সায় দেবে সিপিএম

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন