ওয়েবডেস্ক: অভিনেতা-রাজনীতিবিদ কমল হাসন ( Kamal Haasan) লাদখের গলওয়ান উপত্যকায় ভারত-চিন সেনা সংঘর্ষ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে (Narendra Modi) নিশানা করলেন। তিনি সতর্ক করে দিয়ে বলেন, “এ ভাবে আবেগ দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করা বন্ধ করুন”।

গত ১৫ জুন গলওয়ান উপত্যকায় (Galwan Valley) ভারত-চিন সেনা সংঘর্ষে ২০ জন ভারতীয় জওয়ান নিহত হন এবং আরও কয়েক ডজন আহত হন।

গত শক্রবার সর্বদলীয় বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “কেউ ভারতের এলাকায় (Indian territory) ঢোকেনি, ভারতের কোনো চৌকি (Indian Posts) দখলও করেনি”। এক দিন সেই মন্তব্য নিয়ে তুমুল সমালোচনার সৃষ্টি হলে প্রধানমন্ত্রীর দফতর বিবৃতি দিয়ে জানাতে বাধ্য হয়, “বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী যা বলেছিলেন, তার অভিসন্ধিমূলক ব্যাখ্যা দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে”।

এ প্রসঙ্গে ঝাঁঝালো বক্তব্য পেশ করেন কমল। তিনি বলেন, “এই ধরনের বিবৃতি দিয়ে দেশবাসীকে আবেগগত ভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। আমি প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সমর্থকদের আন্তরিক ভাবে অনুরোধ করছি, যাতে তাঁরা এটা বন্ধ করেন”।

প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা প্রসঙ্গে কমল টুইটারে লিখেছেন, “প্রশ্নগুলিকে দেশবিরোধী হিসাবে গণ্য করা যায় না। প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করার অধিকার গণতন্ত্রের ভিত্তি এবং আমরা যতক্ষণ না সত্যিটা জানতে পারছি, ততক্ষণ প্রশ্ন করতে থাকব”।

একই সঙ্গে মাক্কাল নিধি মায়ামের প্রধান কমল হাসন বলেন, এই সংঘর্ষের জেরে গত বছরের অক্টোবর মাসে তামিলনাড়ুতে প্রধানমন্ত্রী মোদী এবং চিনের রাষ্ট্রপতি শি জিনপিংয়ের (Xi Jinping) বৈঠকের কথা উঠে আসছে। ওই বৈঠক কূটনৈতিক সাফল্যের দাবি করা হয়েছিল।

ফাইল ছবি

আক্রমণ শানিয়ে তিনি বলেন, “আট মাস পরে, চিনারা পিছন থেকে ছুরি চালিয়ে আমাদের নিরস্ত্র সেনাদের মেরে দিল। যদি এটি সরকারের কূটনীতির সাফল্যের ফলে হয়, তা হলে সেই কৌশলটি দুর্ভাগ্যজনক ভাবে ব্যর্থ হয়েছে বা তারা চিনের উদ্দেশ্যগুলোকে সঠিক ভাবে অনুমান করতে ব্যর্থ হয়েছে”।

কমলের দাবি, “এই দু’টি প্রসঙ্গেই সরকারের বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার দরকার রয়েছে”।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন