উত্তরপ্রদেশে হিন্দু নেতা খুনে নাটকীয় মোড়! ‘নেপথ্যে এক বিজেপি নেতা’

0
kamlesh tiwari
কমলেশ তিওয়ারি, ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: হিন্দু মহাসভার প্রাক্তন সভাপতি কমলেশ তিওয়ারি খুনে এখনও পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। যদিও লখনউয়ে নিহত কমলেশের মায়ের অভিযোগ এই মামলায় নতুন মোড় যুক্ত করল।

কমলেশের মা দাবি করেন, “এখান থেকে প্রায় ৯০ কিলোমিটার দূরে সীতাপুর জেলার একজন বিজেপি নেতা এই হত্যার পিছনে ছিলেন”।

” আপনি (পুলিশ) আপনার পছন্দ মতো যে কাউকে গ্রেফতার করতে পারেন এবং তাদের ফাঁসিও দিতে পারেন, তবে আমি জানি, শিবকুমার গুপ্তা (স্থানীয় স্থানীয় বিজেপি নেতা) আমার ছেলেকে মেরেছে”, বক্তব্য তাঁর শোকাহত মায়ের।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, সীতাপুর জেলার মেহমুদাবাদ এলাকার একটি মন্দিরের মালিকানা নিয়ে তিওয়ারি ও গুপ্তার মধ্যে বিরোধ ছিল এবং বর্তমানে বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন রয়েছে।

শুক্রবার তিওয়ারি উত্তরপ্রদেশের রাজধানী লখনউয়ের অফিসে গুলিবিদ্ধ হন। পুলিশ জানায়, জাফরান পরিহিত দুই যুবক লখনউয়ের খুরশিদবাগ এলাকায় তাঁর কার্যালয়ে তিওয়ারিঁর উপর গুলি চালায়। ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্য়ু হয়। এমনটাও জানা যায়, আততায়ী তাঁকে মিষ্টি দেওয়ার অজুহাতে তিওয়ারির অফিসে প্রবেশ করেছিল।

তিওয়ারি তাঁর বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য পরিচিত ছিলেন। হজরত মহম্মদকে নিয়ে আপত্তিজনক মন্তব্য করার জন্য তাঁকে আগে গ্রেফতার করা হয়েছিল। তাঁর উপর জাতীয় নিরাপত্তা আইন (এনএসএ) প্রয়োগ করা হয়েছিল।পরে এলাহাবাদ হাইকোর্ট তাঁর উপর থেকে এনএসএ প্রত্যাহারের নির্দেশ দেয়।

এ দিনই কমলেশের ছেলে সত্যম তিওয়ারি উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগে বলেন, “আমি জানি না যে ধৃতরা আমার বাবাকে খুন করেছে কিনা বা অন্য কেউ করেছে? নির্দোষ লোকদের ফাঁসিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যদি এরা প্রকৃত অপরাধী হয় এবং পুলিশের কাছে ভিডিও প্রমাণ থাকে তবে এনআইএকে তদন্ত করতে দেওয়া উচিত। যদি তারা তদন্ত করে এবং ধৃতরাই অপরাধী প্রমাণিত হয়, তা হলেই আমরা সন্তুষ্ট হব। এই প্রশাসনে আমাদের বিশ্বাস নেই”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here