শাশুড়ির হাতে মার খেয়ে হাসপাতালে সবরীমালার সেই কনকদুর্গা

সবার আড়ালে সবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করে ইতিহাস সৃষ্টি করেন বছর চল্লিশের কনকদুর্গা এবং বিন্দু আম্মিনি

0

কলকাতা: ঋতুমতী মহিলা হিসেবে সবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করে গোটা দেশের বাহবা কুড়িয়েছিলেন যে কনকদুর্গা, নিজের বাড়িতেই শাশুড়ির হাতে মার খেতে হল তাঁকে। এর ফলে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে তাঁকে।

জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহে সবার আড়ালে সবরীমালা মন্দিরে প্রবেশ করে ইতিহাস সৃষ্টি করেন বছর চল্লিশের কনকদুর্গা এবং বিন্দু আম্মিনি। কনকদুর্গা কেরল সরকারের কর্মী এবং আম্মিনি আইনের শিক্ষিকা। তাঁরা মন্দিরের প্রবেশ করার পরে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করে হিন্দুত্ববাদীরা। বিজেপির তরফ থেকে বন্‌ধের ডাক দেওয়া হলেও তাতে খুব একটা প্রভাব পড়েনি।

আরও পড়ুন কুমারীদের ‘সিলড প্যাক’ বলা অধ্যাপকের বিরুদ্ধে জাতীয় মহিলা কমিশনের জোরালো পদক্ষেপ!

হিন্দুত্ববাদীদের তাণ্ডবের ফলে সবরীমালায় প্রবেশের পর থেকে প্রায় অজ্ঞাতবাসে ছিলেন কনকদুর্গা। কিন্তু সোমবার বাড়ি ফেরার পরেই শাশুড়ির হাত থেকে বাঁচতে পারলেন না তিনি। তাঁর মাথায় গুরুতর চোট লেগেছে বলে খবর।

আপাতত স্থিতিশীল হলেও চিকিৎসকরা আরও কয়েকটি পরীক্ষার পরামর্শ দিয়েছেন। তবে কনকদুর্গার শাশুড়িকে এখনও গ্রেফতার করা হয়নি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.