বেঙ্গালুরু: ঠিকাদারের আত্মহত্যায় অভিযুক্ত কর্নাটকের সেই মন্ত্রী কেএস ঈশ্বরাপ্পা ইস্তফা দিলেন। শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাইয়ের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। তার পরেই মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেন ঈশ্বরাপ্পা।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার উদুপির একটি লজে ওই ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এর পরেই ওই মন্ত্রী এবং তার দুই সাগরেদের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগে সরাসরি লেখা হয় যে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর জন্য প্ররোচনা দিয়েছেন খোদ রাজ্যের মন্ত্রী কেএস ঈশ্বরাপ্পা। সেই ঘটনায় তাঁর সঙ্গী ছিলেন তাঁর দুই সাগরেদ বাসবরাজ এবং রমেশ। মৃত ব্যক্তি সন্তোষ পাতিলের ভাই প্রশান্ত এমন অভিযোগ আনেন এই তিন জনের বিরুদ্ধে।

পঞ্চায়েতের একটি কাজে নিযুক্ত ছিলেন সন্তোষ। প্রশান্তের বক্তব্য ৪ কোটি টাকার ওই কাজে, নিজের জন্য ৪০ শতাংশ কমিশন দাবি করেছিলেন ঈশ্বরাপ্পা। এই দাবিতে বার বার সন্তোষকে তিনি চাপও দিচ্ছিলেন বলে অভিযোগ। সন্তোষ আত্মহত্যা করার আগে একটি সুইসাইড নোটও লিখে যান। সেখানেও তিনি ঈশ্বরাপ্পাকে তাঁর মৃত্যুর জন্য দায়ী করা হয়।

ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্য পড়ে যায়। ঘটনাটির তদন্ত যাতে অতি দ্রুত হয়, সেটা নিশ্চিত করার জন্য পুলিশ ও প্রশাসনকে নির্দেশ দেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বোম্মাই।

প্রথম দিকে গোটা ঘটনায় নিজে জড়িত থাকার কথা অস্বীকার করেন ঈশ্বরাপ্পা। কিন্তু এর পরেই মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন তিনি।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন