Connect with us

দেশ

মহারাষ্ট্রের পর নজরে কর্নাটক! হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের মুখে বিজেপি

yeddyurappa

ওয়েবডেস্ক: কংগ্রেস ও জেডিএস বিধায়কদের ইস্তফা দেওয়ার কারণে আগামী ৫ ডিসেম্বর উপনির্বাচন হতে চলেছে কর্নাটকের ১৫টি আসনে। এই বিধায়কদের পদত্যাগের ফলেই ভেঙে যায় কংগ্রেস-জেডিএস জোট সরকার। সেই বিতর্কিত পর্বের পর থেকে দু’টি দলই আলাদা হয়ে গিয়েছে এবং উপনির্বাচনে আলাদা ভাবে লড়াই করছে। তবে সংখ্যা তত্ত্বের বিচারে এই উপনির্বাচনের ফলাফলের উপরেই নির্ভর করছে রাজ্যের বিজেপি সরকারের ভাগ্য।

২২৪ সদস্যের কর্নাটক বিধানসভায় বর্তমানে সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকা সত্ত্বেও ১০৬ জন বিধায়ক নিয়ে ক্ষমতায় রয়েছে। আরও ১০ জন বিধায়ককে সমর্থন তাদের সঙ্গে রয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। অন্য দিকে কংগ্রেস-জেডিএসের হাতে রয়েছে ১০১টি আসন। স্বাভাবিক ভাবেই উপনির্বাচন হতে যাওয়া ১৫টি আসনের মধ্যে কমপক্ষে ছ’টিতে জিততে হবে বিজেপিকে। তবেই তাদের পক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠতা ধরে রাখা সম্ভব।

এক নজরে কর্নাটক উপনির্বাচন:

কর্নাটকের উপনির্বাচনের তারিখ: ৫ ডিসেম্বর, বৃহস্পতিবার

উপনির্বাচনের ফলাফলের তারিখ: ৯ ডিসেম্বর, সোমবার

বিধানসভা কেন্দ্রগুলি: আঠানি, কাগওয়াড়, গোকাক, ইল্লাপুরা, হিরেকেরুর, রানিবেন্নুর, বিজয়নগরা, চিকবল্লাপুরা, কেআর পুরা, যশবন্তপুরা, মহালক্ষ্মী লেআউট, শিবাজিনগরা, হোসাকোতে, কে আর পিট, হুনসুর

মোট প্রার্থীর সংখ্যা: ১৬৫ জন। এঁদের মধ্যে নির্দল ১২৬ এবং ৯ জন মহিলা।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের জুন মাসে কংগ্রেস এবং জেডিএসের ওই ১৭ জন বিধায়কের বিদ্রোহের জন্যই কর্নাটকের কংগ্রেস-জেডিএস সরকার পড়ে যায়। তার পর আস্থা ভোটে জিতে ক্ষমতা দখল করে বিজেপি। কর্নাটক বিধানসভার স্পিকার কে রমেশ কুমার ওই বিদ্রোহী বিধায়কদের বিধায়কপদ বাতিল করে দেন। মামলা সুপ্রিম কোর্টে গড়ালে একই নির্দেশ বহাল থাকে। যে কারণে এই উপনির্বাচন।

তবে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশেই, ওই প্রাক্তন বিধায়কেরাও উপনির্বাচনেও প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। যদিও শিবির বদল করে তাঁরা এ বার লড়ছেন বিজেপির প্রতীকে।

দেশ

বেসরকারি স্কুলে ফি মকুবের আবেদন খারিজ সুপ্রিম কোর্টে

প্রতিটি রাজ্যের সমস্যা পৃথক এবং সুপ্রিম কোর্টে আসার আগে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের উচ্চ আদালতের কাছে বিষয়টি উত্থাপন করা উচিত ছিল

Supreme-Court PF

নয়াদিল্লি: করোনাভাইরাস (Coronavirus) সংক্রমণ এবং লকডাউনের (Lockdown) জেরে বেসরকারি স্কুলের ফি মকুবের আবেদনটি ফিরিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)।

শুক্রবার আবেদনটির শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এসএ বোবডের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, “সর্বোচ্চ আদালত এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে না। কারণ, প্রতিটি রাজ্যের সমস্যা পৃথক এবং সুপ্রিম কোর্টে আসার আগে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের উচ্চ আদালতের (High Court) কাছে বিষয়টি উত্থাপন করা উচিত ছিল”।

আবেদনকারীদের আর্জি প্রত্যাহার করার কারণ হিসাবে বেঞ্চ জানিয়েছে, প্রতিটি রাজ্যের সমস্যা আলাদা হওয়ায় এটির সঙ্গে ভিন্ন ভিন্ন বাস্তব পরিস্থিতি জড়িত রয়েছে।

বেঞ্চ আবেদনকারীকে বলে, “আপনি পুরো দেশের হয়ে একটি আবেদন করেছেন। এটিতে হস্তক্ষেপ করতে গিয়ে আমরা সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছি। কারণ আমরা জানি না যে পুরো দেশের জন্য কে সিদ্ধান্ত নেবে। প্রতিটি রাজ্যের সমস্যা আলাদা”।

এ দিন আটটি রাজ্যের অভিভাবকদের আবেদনের উপর শুনানি করে বেঞ্চ। কোভিড-১৯ মহামারিতে (Covid-19 pandemic) বন্ধ রয়েছে স্কুল। এই বিষয়টিকে সামনে রেখেই আবেদনকারীরা বেসরকারি স্কুলে ফি (School Fees) মকুবের আবেদন জানিয়েছেন।

আবেদনে বলা হয়েছিল, অনলাইনে পড়াশোনার জন্য নির্দিষ্ট নিয়ম নিয়ে আসা প্রয়োজন। সশরীরে স্কুলে গিয়ে পঠনপাঠনের জন্য যে পরিমাণ ফি ধার্য্য করা হয়, অনলাইনের ক্ষেত্রে তার পরিমাণ হ্রাস করা হোক।

রাজ্য়ের পরিস্থিতি

পশ্চিমবঙ্গেও বিভিন্ন বেসরকারি স্কুলের অভিভাবকরা ফি কমানো/মকুব অথবা বৃদ্ধির নির্দেশ প্রত্যাহারের জন্য আন্দোলনে নেমেছেন। করোনা পরিস্থিতিতে কয়েকটি বেসরকারি স্কুল বন্ধ থাকায় বেসরকারি স্কুলগুলি সম্পূর্ণ ফি আদায় করার সিদ্ধান্ত নিলেও অভিভাবকরা দাবি করেছেন তাঁরা টিউশন ফি বাদে অন্য কোনো ফি দেবেন না।

এ বিষয়ে রাজ্য সরকারের তরফেও বেসরকারি স্কুলগুলির উদ্দেশে আবেদন জানানো হয়। এ বছর স্কুল-ফি না বাড়াতে মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর সরকার শহরের স্কুলগুলির কাছে বার বার আবেদন করছেন।

এমন পরিস্থিতিতে বেশ কিছু স্কুল এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কম্পিউটার, স্পোর্টস এবং লাইব্রেরি ফি ২৫ শতাংশ মকুব করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তবে কয়েকটি স্কুল কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, ৭০ শতাংশের বেশি অভিভাবক স্কুল-ফি দিচ্ছেন না। ফলে গভীর আর্থিক সংকটে পড়েছে স্কুলগুলি। এই অবস্থায় আর কিছু দিনের মধ্যেই তাঁরা স্কুলশিক্ষক ও শিক্ষাকর্মীদের বেতন দিতে পারবেন না। হয়তো স্কুলই বন্ধ করে দিতে হবে।

বিস্তারিত পড়ুন: অভিভাবকরা স্কুল-ফি দিচ্ছেন না, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি সিবিএসই স্কুল-প্রধানদের

Continue Reading

দেশ

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় আমরা উদ্বিগ্ন নই: কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Harsh Vardhan

নয়াদিল্লি: দেশে করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্তের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়তে থাকলেও তা উদ্বেগজনক নয় বলে শুক্রবার জানালেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. হর্ষ বর্ধন (Harsh Vardhan)।

টেকনোলজি ইনফরমেশন, ফোরকাস্টিং অ্যান্ড অ্যাসেসমেন্ট কাউন্সিল বা টিএফএসি (TIFAC)-র অনলাইন উদ্বোধনে মন্ত্রী এ দিন বলেন, ভারতে এখন কোভিড-১৯ (Covid-19) রোগীর সুস্থতার হার প্রায় ৬৩ শতাংশ, মৃত্যুর হার কমে হয়েছে ২.৭২ শতাংশ। পাশাপাশি এ দেশ এখনও গোষ্ঠী সংক্রমণের পর্যায়ে পৌঁছোয়নি।

সংবাদ সংস্থা এনআইকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মন্ত্রী বলেন, “কোভিড-১৯ রোগীর সুস্থতার হার এখন প্রায় ৬৩ শতাংশ, মৃত্যুর হার মাত্র ২.৭২ শতাংশ। আমরা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার বিষয়টি নিয়ে উদ্বিগ্ন নই। আমরা নমুনা পরীক্ষা ক্রমাগত বাড়িয়ে চলেছি, যাতে সন্দেহজনকদের দ্রুত চিহ্নিত এবং আক্রান্তদের যতটা তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসা করা যায়”।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, এখন প্রতিদিন গড়ে ২.৭ লক্ষ নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে সারা দেশ মিলিয়ে। তিনি বলেন, “এত বড়ো দেশ হয়েও আমরা এখনও গোষ্ঠী সংক্রমণের পর্যায়ে পৌঁছোইনি। তবে দেশের কিছু কিছু জায়গায় স্থানীয় স্তরের সংক্রমণ ছড়িয়েছে”।

এ দিন সকালে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের প্রকাশিত পরিসংখ্যান অনুযায়ী, দেশে বর্তমানে সুস্থতার হার আরও কিছুটা বেড়ে ৬২.৪২ শতাংশ হয়েছে। দেশের ১৮টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সুস্থতার হার এই জাতীয় হারের থেকে বেশি।

কোন কোন রাজ্যে?

পশ্চিমবঙ্গ- ৬৪.৯৪ শতাংশ

উত্তরপ্রদেশ- ৬৫.২৮ শতাংশ

ওড়িশা- ৬৬.১৩ শতাংশ

ঝাড়খণ্ড- ৬৮.০২ শতাংশ

পঞ্জাব- ৬৯.২৬ শতাংশ

বিহার- ৭০.৪০ শতাংশ

গুজরাত- ৭০.৭২ শতাংশ

মধ্যপ্রদেশ- ৭৪.৮৫ শতাংশ

হরিয়ানা- ৭৪.৯১ শতাংশ

রাজস্থান- ৭৫.৬৫ শতাংশ

দিল্লি- ৭৬.৮১ শতাংশ

এ দিন স্বাস্থ্যমন্ত্রক জানায়, মৃত্যুহার আরও কিছুটা কমে ২.৭২ শতাংশে এসেছে। ৩০টি রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে মৃত্যুর হার জাতীয় হারের থেকে কম।

কোন রাজ্যে কত?

কেরল- .৪১ শতাংশ

ঝাড়খণ্ড- .৭১ শতাংশ

বিহার- .৮২ শতাংশ

তেলঙ্গানা- ১.০৭ শতাংশ

তামিলনাড়ু- ১.৩৯ শতাংশ

হরিয়ানা- ১.৪৮ শতাংশ

রাজস্থান- ২.১৮ শতাংশ

পঞ্জাব- ২.৫৬ শতাংশ

উত্তরপ্রদেশ-২.৬৬ শতাংশ।

এ ছাড়া মণিপুর, নাগাল্যান্ড, দাদরা এবং নগরহাভেলি, দমন এবং দিউ, মিজোরাম, আন্দামান এবং নিকোবর দ্বীপপুঞ্জ ও সিকিমে মৃতের সংখ্যা ‘শূন্য’।

Continue Reading

দেশ

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বাতিল করুক ইউজিসি, দাবি রাহুল গান্ধীর

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বাতিল করে পড়ুয়াদের অতীত দক্ষতার ভিত্তিতে তাঁদের পরের পর্যায়ে উত্তীর্ণ করা হোক।

ওয়েবডেস্ক: কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বাতিল করার দাবি তুললেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। শুক্রবার রাহুল বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির (Coronavirus pandemic) বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বাতিল করে পড়ুয়াদের অতীত দক্ষতার ভিত্তিতে তাঁদের পরের পর্যায়ে উত্তীর্ণ করা হোক।

রাহুলের অভিযোগ, ইউনিভার্সিটি গ্রান্টস কমিশন (UGC) চূড়ান্ত সিমেস্টার এবং চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা বাধ্যতামূলক বলে জানিয়ে দেওয়ার পর বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে। কোভিড-১৯ (Covid-19) পরিস্থিতিতে পরীক্ষা নেওয়া মোটেই বাঞ্ছনীয় নয়। ইউজিসির উচিত পড়ুয়াদের কথা শোনা।

রাহুলের কথায়, কোভিড-১৯ প্রচুর মানুষকে ক্ষতিগ্রস্ত করেছে। স্কুল-কলেজের পড়ুয়ারাও যন্ত্রণার মধ্যে রয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে যখন আইআইটি এবং কলেজগুলি পরীক্ষা বাতিল করছে, তখন ইউজিসি বিভ্রান্তি তৈরি করছে। ইউজিসির উচিত পরীক্ষা বাতিল করে পড়ুয়াদের অতীতের দক্ষতার ভিত্তিতে তাদের পরবর্তী পর্যায়ে উত্তীর্ণ করা।

রাহুল কংগ্রেস একটি দলীয় অনুষ্ঠান স্পিকআপ ফর স্টুডেন্ট-এ যোগ দিয়ে এই মন্তব্য করেন। টুইটারে ওই ভিডিয়োটি পোস্ট করা হয়।

ইউজিসি যা বলছে

কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত সিমেস্টার এবং চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা বাধ্যতামূলক বলে জানিয়ে দিয়েছে ইউজিসি। এর পরই করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কী ভাবে পরীক্ষা নিতে হবে, এ বার সেই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়গুলির কাছে নির্দেশ পাঠিয়েছে ইউজিসি।

কী ভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে, সে বিষয়ে ৩০ দফার একটি ‘স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিয়োর’ পাঠিয়েছে ইউজিসি। সেখানে মাস্ক পরা, শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা-সহ একাধিক ব্যবস্থার উল্লেখ করা হয়েছে। এমনকী, পরীক্ষার্থীদের কারও জ্বর রয়েছে কি না, তা শনাক্ত করতে পরীক্ষাকেন্দ্রে প্রবেশের আগে থার্মোগান রাখার কথাও বলা হয়েছে।

Continue Reading
Advertisement
Supreme-Court PF
দেশ34 mins ago

বেসরকারি স্কুলে ফি মকুবের আবেদন খারিজ সুপ্রিম কোর্টে

প্রযুক্তি1 hour ago

৫৯টি নিষিদ্ধ চিনা অ্যাপকে কেন্দ্রের ৭৯টি প্রশ্ন! উত্তর দিতে না পারলে…

ফুটবল1 hour ago

এটিকে-মোহনবাগানের নতুন লোগো প্রকাশিত, জার্সির রঙ সবুজমেরুনই

Harsh Vardhan
দেশ2 hours ago

করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় আমরা উদ্বিগ্ন নই: কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

শিল্প-বাণিজ্য3 hours ago

এইচডিএফসির অংশীদারিত্ব বিক্রি করছে চিনের কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক

শিক্ষা ও কেরিয়ার3 hours ago

প্রকাশিত হল আইসিএসই এবং আইএসসি ফলাফল, মিলল না মেধা তালিকা!

দেশ4 hours ago

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা বাতিল করুক ইউজিসি, দাবি রাহুল গান্ধীর

দেশ5 hours ago

কোভিড-১৯ রোগীর নাম কেন প্রকাশ করা হবে? সরকারের কাছে জবাব চাইল হাইকোর্ট

দেশ10 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ২৬৫০৬, সুস্থ ১৯১৩৪

কলকাতা2 days ago

কলকাতায় লকডাউনের আওতায় পড়া এলাকাগুলির পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রকাশিত

ক্রিকেট2 days ago

১১৬ দিন পর শুরু আন্তর্জাতিক ক্রিকেট, হাঁটু গেড়ে বসে জর্জ ফ্লয়েডকে স্মরণ ক্রিকেটারদের

দেশ1 day ago

সক্রিয় করোনা রোগীর ৯০ শতাংশই আটটি রাজ্যে!

রাজ্য1 day ago

ঘুমের মধ্যেই চলে গেলেন মহীনের অন্যতম ‘ঘোড়া’ রঞ্জন ঘোষাল

LPG
দেশ2 days ago

উজ্জ্বলা যোজনায় বিনামূল্যের এলপিজি সিলিন্ডার পাওয়ার মেয়াদ বাড়ল আরও তিন মাস

বিনোদন2 days ago

সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যাকাণ্ডে সলমন খান, করন জোহরের বিরুদ্ধে মামলা খারিজ আদালতে

কলকাতা1 day ago

করোনার পাশাপাশি কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে শুরু হচ্ছে অন্যান্য রোগের চিকিৎসা

কেনাকাটা

কেনাকাটা21 hours ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা3 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা4 days ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

কেনাকাটা5 days ago

হ্যান্ড স্যানিটাইজারে ৩১ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

অনলাইনে খুচরো বিক্রেতা অ্যামাজন ক্রেতার চাহিদার কথা মাথায় রেখে ঢেলে সাজিয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সম্ভার।

নজরে