মুখ্যমন্ত্রীর শপথ নেওয়ার তিন সপ্তাহ পর মন্ত্রিসভা পেল কর্নাটক

0

বেঙ্গালুরু: প্রায় তিন সপ্তাহ আগে কর্নাটকের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন বিএস ইয়েদিউরাপ্পা। এত দিন তাঁর কোনো মন্ত্রিসভা ছিল না। সব দায়িত্ব একার হাতে সামলেছেন তিনি। অবশেষে গঠন হল কর্নাটক মন্ত্রিসভার। মঙ্গলবার ১৭ জন বিধায়ককে মন্ত্রী হিসেবে শপথবাক্য পাঠ করান রাজ্যপাল বজুভাই বালা।

গত কুড়ি দিন ধরে এক সদস্যের মন্ত্রিসভা চালিয়েছেন ইয়েদি। রাজ্য যখন ভয়াবহ বন্যার কবলে তখন কোনো দফতরে কোনো মন্ত্রী না থাকার ফলে বন্যাদুর্গত অধিকাংশ এলাকায় যেতে হয়েছে ইয়েদিকে। এর ফলে বিরোধী কংগ্রেস এবং জেডিএসের তোপের মুখে পড়তে হয়েছে নতুন বিজেপি সরকারকে। কংগ্রেসের অভিযোগ, রাজ্যের বর্তমান অবস্থা রাষ্ট্রপতি শাসনের সমতুল্য।

ঠিক কী কারণে এত দিন মন্ত্রিসভা ইয়েদিউরাপ্পা গঠন করেননি তা জানা না গেলেও, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, দলের মধ্যে দ্বন্দ্ব এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন তিনি। এমনকি সোমবার সাংবাদিকদের ইয়েদিউরাপ্পা বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের থেকে তালিকা চলে এলেই নতুন মন্ত্রীরা শপথ নেবেন। অর্থাৎ, কর্নাটকের মন্ত্রিসভা গঠনের ক্ষেত্রে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। ইয়েদিউরাপ্পার মন্ত্রিসভায় ঠাঁই হয়েছে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জগদীশ শেট্টারের।

আরও পড়ুন কঠিন পরীক্ষা পাশ ইসরোর, চাঁদের কক্ষপথে প্রবেশ করল চন্দ্রযান-২

উল্লেখ্য, জুলাইয়ের শেষে আস্থাভোটে হেরে গিয়ে কর্নাটকে মসনদ খোয়াতে হয় কংগ্রেস-জেডিএস জোটকে। কংগ্রেস এবং জেডিএসের ১৭ জন বিধায়ক বিধায়কপদ থেকে ইস্তফা দেওয়ায় সংখ্যালঘু হয়ে যায় কুমারস্বামী সরকার। তবে ওই বিদ্রোহী বিধায়কদের ভাগ্য কী রয়েছে তা ঝুলে আছে সুপ্রিম কোর্টে। যদি সুপ্রিম কোর্ট তাঁদের বরখাস্তের সিদ্ধান্ততেই সম্মতি দেয়, তা হলে এই ১৭ কেন্দ্রে আবার নির্বাচন করতে হবে। সে ক্ষেত্রে বিজেপির পক্ষে ফল না গেলে সংখ্যালঘু হয়ে যেতে পারে ইয়েদিউরাপ্পা সরকারও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here